daily 500 taka income 2023 | ডেইলি ৫০০ টাকা ইনকাম করুন ।

daily 500 taka income

আপনি কি daily 500 taka income করার উপায় সম্পর্কে জানতে চান ? তাহলে এই আর্টিকেলটি শুধু আপনার জন্য।

বর্তমান সময় হলো প্রযুক্তির যুগ। অনলাইনে কেনাকাটা থেকে শুরু করে নানান গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা যায়। পাশাপাশি অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায়।

বর্তমানে অনেকেই এমন একটি ইনকাম সোর্স খুঁজে থাকে। যেখান থেকে নিম্নে ডেইলি ৫০০ টাকা ইনকাম করা যাবে।

ভালো গাইডলাইন না পাওয়ার কারণে অনেকই ধোকার শিকার হয়। অনেক কাজ করার পরও কোন ধরনের টাকা দেওয়া হয় না।

তাই আপনাকে এমন একটি মাধ্যম খুঁজে নিতে হবে যেখান থেকে কোন ধরনের ধোঁকার শিকার হবেন না।

অতএব আজ আমি এমন কিছু গ্রহণযোগ্য এবং ট্রাস্টেড পদ্ধতি বলে দিব যেখান থেকে আপনি daily 500 taka income করতে পারবেন।

পাশাপাশি কাজ করার নিয়ম থেকে শুরু করে নানান খুঁটিনাটি বিষয়গুলো তুলে ধরব। যাতে করে আপনি খুব সহজেই কাজ করতে পারেন। এজন্য অবশ্যই আপনাকে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি গুরুত্ব সহকারে পড়তে হবে।

daily 500 taka income in bangladesh 2023

আমি এখানে ঐ সমস্ত পদ্ধতি গুলো আলোচনা করব যেখানে কাজ করে কোন ধরনের ধোকার শিকার হবেন না।

আমার বলা পদ্ধতি গুলো প্রসিদ্ধ এবং বিশ্বাসযোগ্য। মনে রাখবেন অনলাইনে প্রচুর ধোকার জায়গা রয়েছে।

তাই অবশ্যই আপনাকে ভেবে চিন্তে ট্রাস্টেড পদ্ধতি গুলো গ্রহণ করে কাজ করতে হবে। তাহলে আপনি ১০০% সফল হবেন। আশা করি বিষয়গুলো ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

১. রিসেলিং বিজনেস করে ডেইলি ৫০০ টাকা ইনকাম করুন ।

daily 500 taka income
daily 500 taka income

রিসেলিং বলতে আমরা বুঝি কোন কোম্পানির অনেক প্রোডাক্ট রয়েছে । তারপর কোম্পানি একটি মূল্য নির্ধারণ করে দেয়।

আপনি শুধু কোম্পানির দেওয়া মূল্য থেকে বেশি মূল্যে প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করে দিবেন। মাঝখান থেকে আপনি অনেক লাভবান হবেন। আর প্রোডাক্ট ডেলিভারিসহ নানান কাজ কোম্পানি করবে ।

এটা এমন একটি বিজনেস যেখানে কোন ধরনের পুঁজি ইনভেস্ট করতে হবে না। পুঁজি ছাড়াই এই ব্যবসাটি খুব সহজে আপনি করতে পারবেন।

এখানে শুধু আপনার শ্রম লাগবে। আর মার্কেটিং এর উপর অভিজ্ঞতা লাগবে। যদি আপনার মার্কেটিং এর উপর অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে তো ভালো কথা।

আর যদি অভিজ্ঞতা না থাকে তাহলে খুব সহজেই ফ্রিতে ইউটিউব থেকে মার্কেটিং শিখতে পারেন।

আমাদের দেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো ফেসবুক। এর জন্য আপনি ফেসবুক মার্কেটিং শিখতে পারেন। ইউটিউবে Facebook marketing লিখে সার্চ দিলে অহর অহর ভিডিও পেয়ে যাবেন। সেখান থেকে শিখে নেবেন।

আর যদি আপনি ইনস্টাগ্রাম , টুইটার , ইউটিউব ইত্যাদি এসব সোশ্যাল মিডিয়ায় মার্কেটিং শিখতে চান।

তাহলেও ইউটিউবে এ সম্পর্কে নানান ভিডিও পেয়ে যাবেন। যখন আপনি মার্কেটিং এ অভিজ্ঞতা লাভ করবেন।

তখন আপনি রিসেলিং ব্যবসা শুরু করতে পারেন। বাংলাদেশে কয়েকটি রিসেলিং কোম্পানি রয়েছে। এরমধ্যে সবচেয়ে নামকরা কোম্পানি হলো :

  • checkbox ( চেক বক্স )
  • bbazar (বি বাজার )
  • shop up (শপ আপ)
  • uddom (উদ্দম)
  • reseller hub ( রিসেলার হাব )

এই কোম্পানির সাথে কন্টাক্ট করে তাদের প্রোডাক্ট আপনি মার্কেটিং করে বিক্রি করে দিবেন। এর ফলে আপনি নির্দিষ্ট একটি পরিমাণ লাভ করতে পারবেন।

যেমন : আপনাকে থ্রি পিস বিক্রি করতে দিল। আর এর  মূল্য হিসেবে ১৫০০ টাকা নির্ধারণ করে দিল।

এরপর আপনি ১০০ টাকা লাভে ১৬০০ টাকা বিক্রি করলেন। তাহলে এখানে আপনার ১০০ টাকা মুনাফা হল।

এভাবে যদি প্রতিদিন পাঁচটি প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারেন। তাহলে দিনে খুব অনায়াসে ৫০০ টাকা ইনকাম হবে।

আশা করি আপনি বিষয়টি ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। তাই অবশ্যই আপনাকে সর্বপ্রথম মার্কেটিং এর উপর গুরুত্ব দিতে হবে। আপনি মার্কেটিংয়ের উপর যত অভিজ্ঞ হবেন তত অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

এ ব্যপারে আরো বিস্তারিত জানতে নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন ।

২. এফিলিয়েট মার্কেটিং করে daily 500 taka income bkash এ করুন ।

daily 500 taka income
daily 500 taka income

এফিলিয়েট মার্কেটিং খুবই পরিচিত শব্দ। এফিলিয়েট বলতে আমরা বুঝি কোন একটি কোম্পানি তার একটি প্রোডাক্ট বিক্রি করতে দিল।

ঐ প্রোডাক্টটি বিক্রি করতে পারলে কমিশন হিসেবে আপনাকে ১০% অথবা ১৫% লাভ দিবে। এটা আমাদের বাংলাদেশে খুবই প্রচলিত।

বড় বড় ই-কমার্স কোম্পানিগুলো এফিলিয়েট মার্কেটিং এর সুব্যবস্থা করে রেখেছেন। শুধু আমাদের দেশেই নয়।

বরং অ্যামাজন , আলিবাবা ইত্যাদি বিদেশি বড় বড় কোম্পানি গুলো এফিলিয়েট মার্কেটিং এর সুব্যবস্থা করে রেখেছেন।

তাই আপনি ইচ্ছে করলে দেশী কোম্পানিগুলোতে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন আবার বিদেশি কোম্পানি তথা : অ্যামাজন , আলিবাবা তেও এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং দুইভাবে করতে পারেন।

  1. একটি চমৎকার ওয়েবসাইট তৈরি করে পণ্য সম্পর্কে রিভিউ দিয়ে পণ্যগুলো বিক্রি করতে পারেন।
  2. সোশ্যাল মিডিয়াতে মার্কেটিং করতে পারেন।

ওয়েবসাইট  তৈরি করে এফিলিয়েট মাটিকেটিং করা।

আপনি যদি দেশি কোম্পানি হোক অথবা বিদেশি কোম্পানি হোক দুনো ক্ষেত্রে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চান।

তাহলে সবচেয়ে বেটার পন্থা হলো ওয়েবসাইট তৈরি করা। ওয়েবসাইট আপনি ফ্রিতে তৈরি করতে পারেন।

যেমন ব্লগার ডট কম। আবার টাকা খরচ করে করতে পারেন। যেমন ওয়ার্ডপ্রেস।
ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনি ইউটিউব ভিডিও দেখতে পারেন। এ ব্যাপারে প্রচুর ভিডিও পাবেন।

ওয়েবসাইট তৈরি করার পর অবশ্যই আপনাকে এসইও এর ওপর গুরুত্ব দিতে হবে । যাতে করে খুব সহজে আপনার লেখাগুলো রেঙ্ক করতে পারে।

একটি ওয়েবসাইটের বা লেখার এসইও কিভাবে করতে হয় এ ব্যাপারে জানতে youtube ভিডিও দেখতে পারেন।

যখন আপনার ওয়েবসাইট তৈরি হয়ে যাবে। এসইও সম্পর্কে ধারণা হয়ে যাবে। এরপর আপনি যে প্রোডাক্টটি নিয়ে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চাচ্ছেন।

ওই প্রোডাক্ট সম্পর্কে ভালো ভালো রিভিউ দিবেন। ওই প্রোডাক্ট সম্পর্কে নানান রকম তথ্য দিবেন।

এরপর প্রোডাক্ট এর লিংক দিবেন। যাতে করে খুব সহজে তারা কিনতে পারে। আশা করি এই প্রসেসটি আপনি বুঝতে পেরেছেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় মার্কেটিং করে

আপনি যদি শুধু বাংলাদেশী কোম্পানি গুলো এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চান। তাহলে শুধু facebook , youtube মার্কেটিং শিখে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন।

মার্কেটিং এর ব্যাপারে আপনি অবশ্যই ইউটিউব ভিডিও পেয়ে যাবেন। সেখান থেকে মার্কেটিং শিখে ইউটিউব অথবা ফেসবুকে মার্কেটিং করে খুব সহজেই এই কোম্পানিগুলোর প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারবেন।

প্রতি পন্যে কমিশন যদি ১০০ টাকা পান। তাহলে পাঁচটি পন্য বিক্রি করার মাধ্যমে খুব সহজে ৫০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এরপর বিকাশে পেমেন্ট নিতে পারবেন । আশা করি বিষয়টি ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

  Read more :  ১৬টি উপায়ে ফ্রি টাকা ইনকাম ২০২৩: প্রতিদিন আয় ১০০০ টাকা

৩. আর্টিকেল লিখে দৈনিক ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা ইনকাম করুন ।

আপনি যদি লেখালেখি পছন্দ করেন। তাহলে আপনার জন্য সুবর্ণ একটি সুযোগ রয়েছে। আপনার পছন্দের বিষয়কে কাজে লাগিয়ে টাকা ইনকাম করা।

লেখালেখি করে সাধারণত দুই ভাবে ইনকাম করা যায়।

  • নিজে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানে লেখালেখি করা। এর জন্য দীর্ঘ সময় প্রয়োজন।
  • অন্যের ওয়েবসাইটের জন্য লেখালেখি করে ইনকাম করা। এটা খুব সহজেই সম্ভব।

বর্তমানে এমন অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে। যেমন : জে আইটি ডটকম , ওর ডিনারী আইটি ইত্যাদি। যেখানে লেখালেখির বিনিময়ে টাকা প্রদান করা হয়।

অর্থাৎ প্রত্যেকটি আর্টিকেলের বিনিময়ে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা দেওয়া হয়। ধরুন : একটি আর্টিকেল এর বিনিময়ে ১০০ টাকা প্রদান করা হলো।

তাহলে আপনি যদি প্রতিদিন পাঁচটা আর্টিকেল লিখতে পারেন। তাহলে খুব সহজেই ৫০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন প্রতিদিন। আশা করি বিষয়গুলো ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

 Read more : মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন খুব সহজেই

৪. microworkers এ ছোট ছোট কাজ করে daily 500 taka income করুন ।

এই ওয়েবসাইটটি অনেক প্রসিদ্ধ এবং গ্রহণযোগ্য। এখানে কাজ করে খুব সহজেই পেমেন্ট নিতে পারবেন। পাশাপাশি এখানকার কাজ অনেক সহজ। সাধারণত এখানে যে সমস্ত কাজ পাওয়া যায় :

  • SEO এর কাজ ।
  • facebook একাউন্ট খোলা
  • অ্যাপ ইন্সটল করা ।
  • ওয়েবসাইট এর নানান কাজ ।
  • ইউটিউব একাউন্ট খোলা ।
  • app এর নানা কাজ ।
  • ডাটা এন্ট্রি ।
  • জিমেইল একাউন্ট তৈরি করা ।
  • বিভিন্ন জায়গা রেটিং দেওয়া ।

ইত্যাদি যে রকম ছোট ছোট ও সহজ কাজ পাওয়া যায়।

microworkers এ কাজ করার নিয়ম :

প্রথমে আপনাকে এই ওয়েবসাইটে একটি একাউন্ট খুলতে হবে। এরপর অনেক ছোট ছোট কাজ দেখতে পারবেন।

সেগুলো ক্লায়েন্টের শর্ত অনুযায়ী সম্পন্ন করে দিবেন। এরপর আপনার করা কাজগুলো তাদের কাছে জমা দিবেন।

এভাবে যদি দিনে 5 থেকে 6 টা কাজ করেন। তাহলে খুব সহজে ৫০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এ ব্যপারে আরো বিস্তারিত জানতে নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন ।

৫. ছবি বিক্রি করে ডেইলি ৫০০ টাকা ইনকাম করুন।

আপনি যদি ছবি তুলতে ভালবাসেন। তাহলে আপনার এই ছবি তোলার ভালোবাসাটাকে কাজে লাগাতে হবে।

ছবি তোলার জন্য অবশ্যই কিছু নিয়ম নীতি রয়েছে। এই নিয়ম নীতিগুলো আপনি ইউটিউব থেকে শিখে নিতে পারেন।

আবার চাইলে টেন মিনিট স্কুল থেকে ফ্রিতে শিখে নিতে পারেন। যখন আপনি এভাবে অভিজ্ঞ হয়ে যাবেন।

তখন আপনি চমৎকার চমৎকার ছবি তুলে এ সমস্ত ওয়েবসাইটে খুব সহজে বিক্রি করতে পারবেন।
মোটামুটি প্রতিটি ছবি চার থেকে পাঁচ ডলার বিক্রি করতে পারবেন। এভাবে যদি আপনি প্রতিদিন পাঁচ থেকে ছয়টা ছবি বিক্রি করতে পারেন।

তাহলে খুব সহজে ই ৫০০ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আশা করি বিষয়গুলো ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

পরিশেষে বলবো : উপরে daily 500 taka income সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হলো। আশা করি আপনি ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। কোন প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। ধন্যবাদ।

I always like to learn new things and spread them. Therefore, my main goal is to highlight various new topics related to online business, online income, blogging and information technology.

Leave a Comment