মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন খুব সহজেই

আপনি কি জানতে চান মোবাইলে অনলাইনে আয় করা সম্পর্কে ?  তাহলে এ আর্টিকেলটা আপনার জন্য।

বর্তমান সময়ে অধিকাংশ মানুষই চায় অনলাইন থেকে ইনকাম করতে। কিন্তু সমস্যা হল তাদের কম্পিউটার না থাকার কারণে ইনকাম করতে পারেনা।

কিন্তু আপনি জেনে খুশি হবেন বর্তমানে মোবাইলে  আয় করা যায়। বর্তমানে অনেক মানুষ পিটিসি অ্যাপস  অথবা  সাইট এর পিছনে পড়ে সময় নস্ট করছে , এখান থেকে ধোকা খায়  অধিকাংশ মানুষ  ।

অথবা  ধোঁকা না খেলেও অনেক সময় ব্যয় করে তারা কিন্তু ইনকাম হয় অনেক কম।

অতএব আমি আপনাদেরকে মোবাইলে অনলাইনে আয় করার এমন কিছু মাধ্যম বলবো যার দ্বারা আপনি কখনো ধোঁকা খাবেন না। লাইফ টাইম ইনকাম করতে পারবেন।

মোবাইলে অনলাইনে আয়

মোবাইলে অনলাইনে আয় করার পদ্ধতি

মোবাইলে অনলাইনে আয় করার পদ্ধতি রয়েছে অনেক ।

পদ্ধতি জানার আগে কয়েকটি বিষয় লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন ,অনলাইনে ইনকাম করা এতটা সহজ নয় আবার এতটা কঠিনও নয় । অনলাইনে ইনকাম করার জন্য

  • ধৈর্য ধারণ করতে হবে
  • পরিশ্রম করতে হবে
  • সময় দিতে হবে
  • মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে।

এই কয়েকটি বিষয় যদি আপনার মাঝে থাকে তাহলে বুঝা যায় মোবাইলে অনলাইনে আয় আপনি করতে পারবেন।

নিচে অনলাইনে আয় করার অনেকগুলো পদ্ধতি দেয়া হবে আশাকরি মনোযোগ সহকারে পড়বেন।

যদি মনোযোগ সহকারে পড়েন এবং ফলো করেন তাহলে আপনি সফল হবেনই। আপনাকে কেউ ঠেকাতে পারবেনা।

১/ লেখালেখি করে মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন

লেখালেখি  করে আয় এটা অনেক প্রসিদ্ধ এবং পুরাতন একটি মাধ্যম। এখানে আপনি ২টি সিস্টেমে লেখালেখি করে মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে পারবেন।

অন্যের জন্য ,নিজের জন্য, নিজের একটি ব্লগ সাইট তৈরি করে সেখানে লেখালেখি করে বিভিন্ন উপায়ে আয় করতে পারবেন। আসুন প্রথম বিষয় নিয়ে আলোচনা করা যাক।

(ক) বিভিন্ন বিষয়ে অন্যের জন্য আর্টিকেল লিখে মোবাইল দিয়ে টাকা  আয় করুন

আপনি যদি ভালো ইংলিশ জানেন তাহলে এক্ষেত্রে  ফ্রিল্যান্সার,ফাইবার , আপওয়ার্ক ইত্যাদি নানান বড় বড় সাইটে কনটেন্ট রাইটার হিসেবে আর্টিকেল লিখে মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে পারেন।

ফাইবার, ফ্রিল্যান্সার, আপওয়ার্ক এসমস্ত সাইট থেকে আপনি সারাজীবন ইনকাম করতে পারবেন। ধোকা খাওয়ার কোন সিস্টেমে নাই। আর যদি ইংলিশ ভালো না জানেন। তা হলেও কোন সমস্যা নেই।

কেননা বর্তমানে বাংলায় বিভিন্ন সাইট রয়েছে যেখানে আপনি মোবাইল দিয়ে লেখালেখি করে  অনলাইনে আয় করতে পারবেন নির্দ্বিধায়।

(খ) নিজেই ব্লগ তৈরি করে মোবাইলে অনলাইনে আয় করুন

আপনি ইচ্ছা করলে blogspot.com এর মাধ্যমে ফ্রিতে নিজের ব্লগ শুরু করতে পারেন। আবার ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে টাকা খরচ করে ব্লগ সাইট তৈরি করতে পারেন।

অথবা শুধু ব্লগে ডোমেইন কিনে একটি ব্লগ সাইট তৈরি করতে পারেন। আর এই ব্লগের মধ্যে কয়েক ভাবে ইনকাম করা যায়

  • (১) গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে।
  • (২) এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে।
  • (৩) নিজের প্রোডাক্ট বিক্রি করে।

আরো নানান উপায় রয়েছে। এভাবে আপনি মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে পারেন।

২/ এফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনলাইনে মোবাইলে টাকা আয় করুন

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় মোবাইল থেকে খুব সহজে করা যায়। এবং অনেক লাভজনক হয়। আগে জানতে হবে এফিলিয়েট মার্কেটিং কি?

কোন কোম্পানির প্রডাক্ট বা সার্ভিস বিক্রি করে দেওয়া হল এফিলিয়েট মার্কেটিং । এর ফলে ওই কোম্পানি আপনাকে কিছু কমিশন দেবে। আর এটা আপনি করবেন বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় মার্কেটিং করে।

আর এই মার্কেটিং টা অনেক সহজ।বাংলাদেশী এবং বিদেশি প্রচুর নামকরা সাইট রয়েছে যারা এ সুযোগটা দিয়েছে।

তবে বিভিন্ন কোম্পানির কমিশন বিভিন্ন রকম। যেমন বাংলাদেশে কয়টি সাইট হল: দারাজ।

এখানে প্রায় 9 লক্ষ 50 হাজারের অধিক পণ্য রয়েছে। দারাজ সর্বোচ্চ 12% পর্যন্ত কমিশন দেয়।বিডি শপ। এখান থেকে আপনি বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট পাবেন।

এখানে আপনি প্রতিটি প্রোডাক্ট বিক্রির মাধ্যমে 3% কমিশন পাবেন। তবে যদি আপনি ভাল সেল করতে পারেন তাহলে আপনার কমিশন বাড়তে থাকবে। আরো নানান সাইট রয়েছে বাংলাদেশ।

সেখান থেকেও আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে পারেন।ঠিক তেমনিভাবে বিদেশি নামকরা সাইট রয়েছে। যেমন:  অ্যামাজন।

এই ই-কমার্স সাইট মোটামুটি সকলেই চিনে। এখানে নানান ধরনের প্রোডাক্ট পাওয়া যায়। তারা প্রায় সর্বোচ্চ 12%পর্যন্ত কমিশন দিয়ে থাকে।

আরেকটি বিদেশি সাইট রয়েছে : আলিবাবা। এখানে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ভালো টাকা ইনকাম করতে পারেন।

৩/ এফিলিয়েট এর জন্য কিভাবে আপনি মার্কেটিং করবেন ?

এফিলিয়েট মার্কেটিং করার বিভিন্ন উপায় রয়েছে। যেমন : বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা।

আর এটা এভাবে যে, আপনি যে নিশ নিয়ে কাজ করছেন।

ওই রিলেটেড বিভিন্ন গ্রুপে জয়েন হয়ে শেয়ার করা। আর এটা সবচেয়ে বেশি কার্যকর হয় ফেসবুকে ।

কারণ সবচেয়ে মানুষ বেশি একটিভ থাকে ফেসবুকে।

বড় বড় কোম্পানি তারা ফেসবুককে মার্কেটিং করার জায়গা হিসেবে গ্রহণ করেছে।ঠিক তেমনিভাবে আপনিও ফেসবুকের মাধ্যমে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারবেন।

আপনি যদি লেগে থাকেন তাহলে আপনিও সফল হবেন।

অথবা আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানে প্রডাক্ট সম্পর্কে বিভিন্ন রিভিউ দিয়েও মার্কেটিং করতে পারেন।

অথবা আপনি ইউটিউবে ওই প্রডাক্ট সম্পর্কে বিভিন্ন রিভিউ দিয়ে ভিডিও তৈরি করে মার্কেটিং করতে পারেন।

আর এটা অনেক কার্যকরও। অতএব আপনি এসমস্ত প্রসেসে মোবাইলে অনলাইনে আয় করতে পারেন লাইফটাইম।

৪/ ইউটিউবিং করে অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে

অনেক ইউটিউবাররা যারা মোবাইল দিয়ে ইউটিউবিং করছে। হাজার হাজার টাকা ইনকাম করছে।

অনেকেই ভাবছে মোবাইল দিয়ে আবার কিভাবে ইউটিউবিং করা যায়।

অনেকেই অসম্ভব মনে করে।তারা মনে করে ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার লাগে আরো নানান বিষয় এটা কম্পিউটার ছাড়া সম্ভব না।

বর্তমানে ডিজিটাল যুগ।

মোবাইলের জন্য অনেক ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার পাওয়া যায়।

ভিডিও রেকর্ডিং করে সে সমস্ত সফটওয়্যার দিয়ে খুব ভালো মানের ভিডিও এডিট করা যায়।

এবং অডিও কে প্রফেশনাল ভাবে এডিট করা যায়।

মোটকথা : বর্তমান সময়ে অডিও হোক অথবা ভিডিও হোক ভালোভাবে এডিট করা যায়। আর ইউটিউব এর মধ্যে ও বিভিন্ন উপায়ে আয় করা যায় ব্লগের মত।

যেমন গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে, এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে। আরো নানান উপায়। অতএব মোবাইল এর মাধ্যমে একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলে প্রফেশনালভাবে মোবাইলে অনলাইনে আয়  করা যায়।

৫/ মোবাইল দিয়ে পিকচার তুলে  আয় করুন।

বর্তমানে অনলাইনে ফটো/ছবি বিক্রি করে প্রচুর টাকা ইনকাম করা যায়।

বড় বড় অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে যারা আপনার তোলা ছবি কেনার মাধ্যমে আপনাকে টাকা দিবে।

এবং তারা এই ছবিগুলো বিক্রি করে ইনকাম করে । কারণ সকালেই চায় কপিরাইটমুক্ত ছবি। আরো বিভিন্ন  প্রয়োজনের জন্য ছবি ক্রয় করে থাকে বিভিন্ন  কম্পানি।

কয়েকটি নামকরা ওয়েব সাইট হল যারা ছবি ক্রয় করে shutterstock, gettyimage, istockphoto ইত্যাদি।

৬/ মোবাইল apps দিয়ে  আয় করুন

অ্যাপসের মাধ্যমে ইনকাম টা খুবই কম হয়ে থাকে। পাশাপাশি মানুষ ধোকা খেয়ে থাকে। কাজ করার পর আর টাকা দেয় না। আর নানান সমস্যা হয়ে থাকে।

তবে আপনি নামকরা কয়েকটি অ্যাপস এ কাজ করতে পারেন। যেমন: বিকাশ app , এখানে আপনি রেফার করার মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।আরেকটা নামকরা অ্যাপ রয়েছে রিং আইডি।

এখান থেকেও আপনি নানান উপায় আয় করতে পারেন। তবে অ্যাপ থেকে আয় করার জন্য একটা বিষয় লক্ষ রাখতে হবে যে, অ্যাপটি পেমেন্ট করে কিনা?

এবং কেমন পেমেন্ট করে বেশি না কম? এসব নানান বিষয়ে যাচাই-বাছাই করে অ্যাপের মধ্যে কাজ করবেন।

পরিশেষে বলব: উপরে উল্লেখিত মোবাইলে অনলাইনে আয় করার যে , মাধ্যমগুলো  বললাম যদি গুলোকে ফলো করা হয় আশা করি আপনি লাইফ টাইম ইনকাম করতে পারবেন।

যদি আমার লেখা ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। এবং শেয়ার করতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন :-

  1. অনলাইনে পণ্য বিক্রয় করে আয় করুন খুব সহজেই – ২০২১
  2. শেয়ার বাজার কিভাবে কাজ করে ?

কিভাবে মোবাইল দিয়ে ইনকাম করা যায় ?

মোবাইল দিয়ে নানান রকমভাবে ইনকাম করা যায় ।
১. ছবি বিক্রি করে ইনকাম
২. মোবাইল apps দিয়ে  আয়
৩. ইউটিউবিং করে
৪. এফিলিয়েট মার্কেটিং করে
৫. ব্লগ তৈরি করে

Leave a Comment