জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন ২০২২

আপনি কি জানতে চান জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন সম্পর্কে ? জন্ম নিবন্ধন আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। তাড়াহুড়া অথবা বিভিন্ন কারণে অনেক সময় জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে ভুল হয়।

ফলে পরবর্তীতে অনেক ঝামেলা হয়। এর ফলে অনেকে টেনসনে পড়ে যায় এবং তারা ভাবে হয়তো জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করা যাবে না। অথচ তাদের ধারণা ভুল।

কেননা বর্তমান সময়ে জন্ম নিবন্ধনের ভুল খুব সহজেই সংশোধন করা যায়। আজ আমি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব। যাতে করে আপনি খুব সহজেই ভুল সংশোধন করতে পারেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন ২০২২

আমি এখানে এমন কিছু পদ্ধতি বলব যেগুলো আপনি step-by-step ফলো করবেন। তাহলে খুব সহজেই সংশোধন করতে পারবেন। এবং এক্ষেত্রে 10 থেকে 15 দিনের মধ্যেই আপনার জন্ম নিবন্ধন টি সঠিক হয়ে যাবে। অন্যথায় ঝামেলায় পড়তে পারেন।

সংশোধনের পূর্বে যে সমস্ত কাগজ অবশ্যই লাগবে 

  • যিনি আবেদন করছেন তার জন্ম নিবন্ধন লাগবে। (শর্ত হলো অনলাইনে তা নিবন্ধিত থাকতে হবে)
  • বাবা ও মার জন্ম নিবন্ধন থাকতে হবে। (শর্ত হলো এ দুজনের জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে থাকতে হবে )
  • শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ লাগবে অথবা টিকার সনদ লাগবে। বিভিন্ন তথ্য প্রমাণ করার জন্য অন্যান্য সনদ লাগবে।

পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন নিয়ম

প্রথম স্টেপ : যদি আপনার পিতা-মাতার নাম সংশোধন করতে হয় । এক্ষেত্রে প্রথমেই দেখতে হবে আপনার পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন আছে কিনা ? যদি জন্ম নিবন্ধন থাকে তখন আপনি সেই জন্ম নিবন্ধন এর নাম্বার দিয়ে আপনার জন্ম নিবন্ধনের তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করবেন।

দ্বিতীয় স্টেপ : আপনি যখন জন্ম নিবন্ধন করেছেন তখন যদি আপনার পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিয়ে থাকেন তাহলে যখন তাদের নাম সংশোধন করবেন । তখন পিতা-মাতার নাম সংশোধিত দেখতে পাবেন। যখন আপনার নিবন্ধন সনদটি পুনর্মুদ্রিত হবে। এ ক্ষেত্রে কোন ধরনের ঝামেলা ছাড়াই নাম সংশোধন হয়ে যাবে। এভাবেই আপনি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন করতে পারবেন ।

তৃতীয় স্টেপ : যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন করার সময় আপনার পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি না দিয়ে থাকেন। এ ক্ষেত্রে করণীয় হল: আপনার পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন এর সাথে আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ম্যাপ তৈরি করতে হবে।

যখন আপনি নাম্বার ম্যাপ করবেন। তখন আপনার পিতা মাতার নাম সংশোধন দেখতে পারবেন। আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদটি পুনর্মুদ্রণ করার পর। এভাবেই খুব সহজে আপনার পিতা মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন।

চতুর্থ স্টেপ : যদি আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধনের সময় আপনার পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার না দিয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে দুইটি নিয়ম রয়েছে।

প্রথম নিয়ম : যদি আপনি ১/১/২০০১ এর আগে জন্মগ্রহণ করেন। তাহলে এ ক্ষেত্রে পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন আবশ্যক নয়। তাই এক্ষেত্রে যে সমস্ত কাগজপত্র প্রয়োজন সেগুলো দিলেই হয়ে যাবে। এভাবেই আপনি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন করতে পারবেন ।

দ্বিতীয় নিয়ম : আপনার জন্ম যদি ১/১/২০০১ এরপরে হয় এবং এক্ষেত্রে আপনার পিতা মাতা জন্ম নিবন্ধন না থাকে। তাহলে নিয়ম হলো : পিতা-মাতা যদি জীবিত থাকে তাদের জন্ম নিবন্ধন করতে হবে।

তারপর আপনার জন্ম নিবন্ধন এর নাম্বারের সাথে পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন এর নাম্বারকে ম্যাপ করাতে হবে। তাহলে আপনার জন্ম নিবন্ধন এর ভুল সংশোধন হয়ে যাবে। অর্থাৎ ভুল সংশোধিত পাবেন।

তবে এক্ষেত্রে যদি পিতা-মাতার মৃত্যুবরণ করে তাহলে তাদের মৃত্যুর প্রমাণপত্র লাগবে। এভাবে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধনের ভুল সংশোধন করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন পদ্বতি

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার জন্য সর্বোপ্রথম আপনাকে সরকারি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। ওয়েবসাইটে প্রবেশ। ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর এরকম একটি পেজ আসবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

এখানে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিবেন। তারপর জন্মতারিখ দেবেন। এরপর অনুসন্ধান অপশনে ক্লিক করবেন। আপনার জন্ম নিবন্ধন এর নাম্বারটা যদি সঠিক থাকে এবং জন্মতারিখ সঠিক থাকে। তাহলে আপনার সমস্ত তথ্য দেখাবে।

তারপর একশন নামক অপশনে ক্লিক করুন। তারপর আপনি কি নিশ্চিত ? এরকম ধরনের একটি মেসেজ দেখাবে। এরপর আপনি কন্ফার্ম অপশনে চাপ দিবেন।

দ্বিতীয় স্টেপ : এই স্টেপে আপনি আপনার ঠিকানাকে নির্বাচন করুন। অর্থাৎ দেশ , বিভাগ, জেলা, সিটি কর্পোরেশন বা উপজেলা, ইউনিয়ন ,অফিস ইত্যাদি নানান বিষয় আপনাকে দিতে হবে। এ সমস্ত তথ্য দেওয়া হয়ে গেলে পরবর্তী নামক অপশনে ক্লিক করুন।

তৃতীয় স্টেপ : এই স্টেপ এ আপনি আপনার সংশোধিত তথ্য অর্থাৎ যে ভুলটা হয়েছিল সে ভুলটাকে সংশোধন করে নতুন ভাবে শুদ্ধভাবে আপনার তথ্যটি দিবেন।

অতএব যদি আপনি আপনার নাম সংশোধন করতে চান তাহলে বিষয় ড্রপডাউন থেকে নামটি সিলেক্ট করুন। তারপর আপনি আপনার নাম দিবেন বাংলা-ইংরেজিতে , পিতা-মাতার নাম দিবেন বাংলা-ইংরেজিতে , জন্মতারিখ , জাতীয়তা ইত্যাদি এসব বিষয় দিয়ে পূর্ণ করবেন।

এরপর সংশোধনের কারণ হিসেবে ভুল লিপিবদ্ধ হয়েছে এই কথাটি সিলেক্ট করুন। আপনি যদি আরো ভুল সংশোধন করতে চান তাহলে আরো তথ্য সংযোজন করুন বাটনে ক্লিক করুন।

চতুর্থ স্টেপ : আপনি যদি ঠিকানাকে সংশোধন করতে চান তাহলে আপনি আপনার সংশোধিত তথ্য দেবেন। অর্থাৎ আপনি আপনার জন্মস্থান , স্থায়ী ঠিকানা, বর্তমান ঠিকানা ইত্যাদি এগুলো তথ্য দিয়ে পূর্ণ করবেন।

পঞ্চম স্টেপ : যিনি আবেদন করেছেন জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য তার তথ্য প্রদান করতে হবে। নিবন্ধন কারী ব্যক্তি এবং যিনি আবেদন করেছেন তাদের মাঝে কি সম্পর্ক সেটা উল্লেখ করতে হবে। পাশাপাশি আবেদনকারীর মোবাইল নাম্বার, ঠিকানা, ইমেইল ইত্যাদি দিতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

আবেদনকারী যদি পিতা-মাতা ছাড়া অন্য কেউ হয় যেমন দাদা-দাদী , নানা-নানি তাহলে এক্ষেত্রে করণীয় হলো আবেদনকারীর জন্ম নিবন্ধন এবং তাদের পরিচয় পত্রের নাম্বার দিতে হবে। এ সমস্ত তথ্য দেয়া হয়ে গেলে সংযোজন অপশনে ক্লিক করুন।

প্রয়োজনীয় সমস্ত তথ্য আপলোড করবেন। তথ্যগুলোর জন্য যেন স্পষ্ট হয়। কোন ধরনের ঘোলাটে যেন না হয়। তারপর পেমেন্ট অপশনে ক্লিক করুন। যদি আপনি অনলাইনে ফি দিতে চান তাহলে অনলাইনে পরিষদ অপশনে ক্লিক করুন।

এক্ষেত্রে অনলাইনে পরিশোধ করতে হবে। আর যদি আপনি চালান এর মাধ্যমে পরিশোধ করতে চান। তাহলে আপনাকে চালান নং , চালান জমা দেয়ার তারিখ এবং পরিষদের মাধ্যম , ব্যাংক ইত্যাদি এ সমস্ত জিনিস পূর্ণ করে সাবমিট বাটনে ক্লিক করতে হবে।

এরপর সাকসেস একটি মেসেজ আসবে তাহলে বুঝতে পারবেন আপনার আবেদনটি সম্পূর্ণভাবে সফল হয়েছে। তখন একটি রেফারেন্স নাম্বার পাবেন এটাকে পৃন্ট করে আপনার পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন পরিষদ অথবা সিটি কর্পোরেশনে জমা দিবেন।

তারপর 10 থেকে 15 দিনের মধ্যে তারা আপনার আবেদনটি যাচাই-বাছাই করে আপনার সংশোধিত জন্ম নিবন্ধন সনদ দিয়ে দিবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন ফি
তথ্য সংশোধনের জন্য ফি : দেশ : ১০০ টাকা , বিদেশ: ১ ডলার
জন্ম তারিখ ব্যতীত নাম , পিতার নাম , ঠিকানা ইত্যাদি এরকম তথ্য সংশোধনের জন্য : দেশ : ৫০ টাকা , বিদেশ : ১ ডলার
বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় তথ্য সংশোধনের পর কপি সরবরাহ করার জন্য : দেশ : কোন ধরনের ফিস নেই , বিদেশ : কোন ধরনের ফিস নেই
বাংলা ইংরেজি ভাষায় জন্ম নিবন্ধন সনদের নকল সরবরাহ : দেশ : 50 টাকা , বিদেশ : 1 ডলার

উপরের নিয়মে আপনি খুব সহজেই জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে পারবেন।

পরিশেষে বলব : উপরে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করলাম। যদি আপনি প্রতিটি বিষয়ে step-by-step গ্রহণ করেন।

তাহলে খুব সহজে ঘরে বসে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে পারবেন। অন্যথায় সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আশাকরি আপনাদের এই লেখাটা অনেক উপকারে আসবে। যদি ভালো লেগে থাকে। তাহলে অবশ্যই জানাবেন । ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন : কিভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করা যায় ?

Leave a Reply

Your email address will not be published.

two × one =