সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম

আপনি কি জানতে চান সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম ? এই নামাজ অনেক গুরুত্বপূর্ণ এবং ফজিলতপূর্ণ। এই নামাজের ব্যাপারে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অনেক গুরুত্ব দিয়েছেন। বুঝা গেল এই নামাজের অনেক গুরুত্ব রয়েছে।

আজ আমি সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব আপনি খুব সহজেই নিয়মগুলো মেনে নামাজ আদায় করতে পারেন।

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম
সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম

প্রত্যেক রাকাতে سبحان الله والحمد لله ولا اله الا الله والله اكبر  (সুবাহানাল্লাহি অল হামদুলিল্লাহি লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু আল্লাহু আকবার) এই দোয়াটি 75 বার পড়তে হবে। সালাতুত তাসবিহ এর নামাজ 4 রাকাত পড়া হয়। এই হিসেবে এই দোয়াটি 300 বার পড়তে হবে।

  • 15 বার ওই দোয়াটি সূরা ফাতিহা পড়ার আগে পড়তে হবে।
  • আরো ১০ বার এই দোয়াটি পড়তে হবে সূরা ফাতিহা ও অন্য অন্য একটি সূরা মিলানের পর ।
  • আরো ১০ বার রুকুতে গিয়ে রুকুর তাসবিহ পড়ার পর।
  • ১০ বার রুকু থেকে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে রব্বানা লাকাল হামদু বলার পর।
  • আরো ১০ বার সিজদার মধ্যে যেয়ে সেজদার তাসবিহ বলার পর।
  • ১০ বার ঐ দুয়াটি পড়তে হবে দুই সিজদার মাঝখানে বসে আল্লাহুম্মাগফিরলি ওয়ারহামনি বলার পর।
  • আরো ১০ বার ঐ দুয়াটি পড়তে হবে দ্বিতীয় সেজদায় তাজবিহ পড়ার পর।

এই হিসেবে প্রথম রাকাতে 75 বার ওই তাসবিহটি পড়া হলো। এই সিস্টেমে দ্বিতীয় , তৃতীয় ও চতুর্থ রাকাতে ঐ তাসবিহটি পড়বেন। আরেকটি বিষয় দ্বিতীয় রাকাতে তাশাহুদ পড়ে তৃতীয় রাকাতের জন্য দাঁড়িয়ে যাবেন। সালাম ফিরাবেন না।

গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি বিষয়

১. যদি নামাজের মধ্যে কোন সমস্যার কারণে সিজদায়ে সাহু ওয়াজিব হয় তাহলে সেই সিজদা সাহু আদায় করার সময় সিজদার মধ্যে তাজবীহ পড়বেন না।

২. যদি কোন কারনে নির্দিষ্ট পরিমাণ তাসবিহ পড়া না হয়। তাহলে যখন স্মরণ হবে তখন আদায় করে নিবেন।

৩. যখন আপনি দোয়া পড়বেন তখন আঙ্গুল দিয়ে গণনা করবেন না। তবে আঙ্গুলকে চেপে চেপে তাসবিহ এর সংখ্যা গণনা করতে পারেন।

সালাতুত তাসবিহ নামাজ পড়ার সময়

সালাতুতাসবির নির্দিষ্ট কোন সময় নেই। যেকোনো সময় পড়তে পারেন। তবে জীবনে একবার হলেও পড়তে হবে। ব্যাপারে একটি হাদীস রয়েছে। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাই ওয়াসাল্লাম তার চাচা কে বললেন। হে চাচা তুমি এভাবে প্রতিদিন একবার হলেও এ নামাজটা পড়তে সক্ষম হন তাহলে পড়বেন।

আর যদি এটা সক্ষম না হন তাহলে প্রত্যেক জুমার দিনে একবার পড়বেন। যদি এটাও সক্ষম না হন তাহলে প্রত্যেক মাসে কমপক্ষে একবার পড়বেন।

যদি এটাও না পারেন তাহলে প্রত্যেক বছরে একবার পড়বেন। আর যদি তাও না পারেন জীবনে কমপক্ষে একবার এই নামাজটি পড়বেন। ( তিরমিজি শরীফ , আবু দাউদ শরীফ )

বুঝা যাচ্ছে এই নামাজের কত গুরুত্ব। আমরা অবশ্যই চেষ্টা করব এই নামাযটি নামাজ পড়তে।

সালাতুত তাসবিহ নামাজ সুন্নত নাকি নফল

অনেকেই মনে করে এই নামাজটি সুন্নত। আসলে বিষয়টা এরকম নয়। এই নামাজ টি হল নফল।

পরিশেষে বলব : উপরে সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হলো। যদি আপনি এই নামাজটা পড়তে চান তাহলে উপরের বিষয়গুলো ফলো করবেন। আশা করি খুব সহজেই এই নামাজ পড়তে পারবেন।

যদি এই লেখাটি আপনার উপকারে দিয়ে থাকে এবং ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

eleven + three =