দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায়

আপনি কি জানতে চান দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায় কি ? ঘুম আল্লাহ সুবহানাহুওয়া তা’আলার একটি বড় অনুগ্রহ ও নেয়ামত। মানুষ বেঁচে থাকার জন্য অপরিহার্য হলো ঘুম।

একজন মানুষ সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য অতি আবশ্যক হলো পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুম। কেউ যদি সুস্থ থাকতে চায় তাকে অবশ্যই দৈনিক কমপক্ষে আট ঘণ্টা ঘুমাতে হবে। কিন্তু সবাই চাইলেই তো আর আট ঘণ্টার ঘুমাতে পারে না ।

অনেকেই এমন রয়েছে তাদের রাতে ঘুম হয় না, তারা ঘুমানোর অনেক চেষ্টা করে, ঘুম হওয়ার জন্য বড় বড় ডাক্তারের কাছ থেকে ঔষধ সেবন করে থাকে কিন্তু এর পরও ঘুম হয় না। ঘুমানোর জন্য তারা বিভিন্ন টিপস অনুসরন করে থাকে কিন্তু এরপরেও তাদের রাতে ঘুম হয় না।

অথবা অনেকেই এমন রয়েছে যারা রাতে ঘুমানোর জন্য দীর্ঘ সময় বিছানায় শায়িত হয়ে থাকে কিন্তু এরপরেও ঘুম আসেনা রাত একটা , দুইটায় ঘুমায় আসে, আবার সকাল সকাল অফিসে যেতে হয় বা বিভিন্ন কাজ লিপ্ত হতে হয়,

রাতে ঘুম পরিপূর্ণ না হওয়ার কারণে দেখা যায় সারা দিন অস্থিরতা অনুভব করে, সারাদিন শরীরে এক ধরনের অলসতা বয়ে যায়। অথবা অনেকে এমন রয়েছে যারা রাতে গভীর ঘুমে নিমজ্জিত হওয়ার পরও কিছুক্ষণ পরপর ঘুম ভেঙে যায় ইত্যাদি বিভিন্ন রকমের সমস্যা রয়েছে।

এছাড়াও কম ঘুম শরীরের বিভিন্ন রকমের সমস্যা তৈরী করতে পারে যেমন মেদ বৃদ্ধি, মানসিক চাপ, স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়া, ক্যান্সার, হৃদযন্ত্র বন্ধ, আলঝেইমার রোগ, অকালমৃত্যুর ঝুঁকি বৃদ্ধি করতে পারে ইত্যাদি।

আজ আমরা আলোচনা করব দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায় সম্পর্কে, তো চলুন জেনে নেওয়া যাক দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায় সমূহ ।

দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায়

দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায় সমূহ:

আমি যে উপায়গুলো বলব ঘুমানোর সুন্নাত সমূহ । এগুলো ফলো করলে দ্রুত ঘুম আসবে ।

১. অজু করা

আপনি যদি দ্রুত ঘুমিয়ে পড়তে চান, অথবা আপনার যদি এমন সমস্যা হয় যে, দীর্ঘ সময় যাবত ঘুমানোর জন্য বিছানায় শায়িত হয়েছেন, কিন্তু ঘুম হচ্ছে না।

অথবা যদি এমন সমস্যা হয়ে থাকে যে, গভীর নিদ্রায় চলে যাওয়ার পর কিছুক্ষণ পরপর ঘুম ভেঙে যায়। এমন সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে অথবা দ্রুত ঘুমিয়ে পড়তে ঘুমানোর পূর্বে অজু করে ঘুমান। এতে আপনার অতি সহজে ঘুম চলে আসবে।

রাতে বারবার ঘুম ভাঙ্গবে না ইনশাআল্লাহ। এছাড়াও রাতে অজু করে ঘুমানো রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সুন্নত।

ইমাম ইবনে হিব্বান রহ. আব্দুল্লাহ ইবনে উমার রা. থেকে বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেছেন: যে ব্যক্তি পবিত্র অবস্থায় (অজু অবস্থায়) ঘুমায় তার সঙ্গে একজন ফেরেশতা নিয়োজিত থাকে।

অতঃপর সেই ব্যক্তি ঘুম থেকে জাগ্রত হওয়ার সাথে সাথেই আল্লাহর সমীপে ফেরেশতাটি আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করে বলে, হে আল্লাহ তোমার অমুক বান্দা কে ক্ষমা করে দাও, কেননা সে পবিত্র অবস্থায় ঘুমিয়ে ছিল। ( সহি ইবনে হিব্বান ৩/৩২৮- ৩২৯, সহি আত তারগীব ওয়াত তারহীব ১/৩১৭.)

এছাড়াও ওযুর মাধ্যমে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে, বিশিষ্ট হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার সালামত আজিজ বলেন, অজু হৃদ রোগ আরোগ্য হওয়ার একটি উপায়।

পাশ্চাত্যের মনস্তত্ত্ববিদরা প্রতিদিন অজুর মত করে কয়েকবার দেহে পানি লাগানোর পরামর্শ দেন। (পরিবেশ, স্বাস্থ্য ও বিজ্ঞানে মুহাম্মদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সালাম, পৃষ্ঠা ১১২)

শরীরকে সুস্থ রাখতে, রাতে ভালো ঘুম এবং দ্রুত ঘুমিয়ে পড়তে অজু করুন।

২. দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায় ডান কাতে শোয়া

চিত হয়ে ঘুমাবেন না। ডান কাত হয়ে ঘুমাবেন।অজু করার পর ডান কাত হয়ে শোয়া। এটিও হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু সালামের একটি সুন্নাত।

হযরত বারা ইবনে আযিব রা.হতে বর্ণিত তিনি বলেন রাসূলুল্লাহ সাল্লাহু সালাম তাকে বলেছেন: যখন তুমি তোমার শয্যা গ্রহণের ইচ্ছা করবে, তখন সালাতের নেই অজু করে ডান কাত হয়ে শয়ন করবে।( বুখারী ও মুসলিম)

৩. জিকির করা

দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায় যদি এমন হয় যে , দীর্ঘ সময় যাবত বিছানায় শায়িত হয়ে রয়েছেন কিন্তু ঘুম পাচ্ছে না তখন, আল্লাহ সুবহানাহুওয়া তা’আলার জিকির করুন। প্রথমে অজু করবেন, এরপর ডান কাতে শয়ন করবেন, হাতে একটি তাসবিহ নিবেন,

এরপর আল্লাহ আল্লাহ জিকির করবেন একশতবার। দরুদ শরীফ পড়বেন একশতবার, এস্তেগফার পারবেন একশতবার। 33 বার সুবাহানাল্লাহ, তেত্রিশ বার আলহামদুলিল্লাহ্, 34 বার আল্লাহু আকবার পড়বেন। এতে আপনার সর্বোচ্চ 20 মিনিট সময় ব্যয় হতে পারে, ইনশাআল্লাহ এগুলো পড়া অবস্থায় ঘুম চলে আসবে।

হযরত মুয়ায বিন জাবাল রা. হতে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেছেন পবিত্র অবস্থায় জিকির করতে করতে ঘুমানো ব্যক্তি, রাতে জাগ্রত হয়ে দুনিয়া ও আখেরাতের কল্যাণের জন্য আল্লাহর কাছে যা চাইবে আল্লাহ তাকে তা দান করবেন। ( আবু দাউদ: ৫০৩২ , ১৩/২২৬)

৪. দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায় কোরআন তেলাওয়াত শ্রবণ করা

যদি আপনি খুব হতাশাগ্রস্থ অথবা কোন বিষয়ে চিন্তিত হয়ে থাকেন কিংবা কোন কারণে মন খারাপ হয়ে থাকে, তাহলে প্রথমে অজু করুন এবং ডান কাতে শয়ন করুন। এরপর কানে ইয়ারফোন ঢুকিয়ে কোরআন তেলাওয়াত শ্রবণ করতে থাকুন।

ইউটুবে অনেক সুন্দর সুন্দর কোরআন তেলাওয়াত পাওয়া যায়, যার কুরআন তেলাওয়াত ভালো লাগে, তার কোরআন তেলাওয়াত শুনতে থাকুন। ইনশাআল্লাহ এতে অতি সহজে আপনার হতাশা দূর হয়ে যাবে, মন প্রফুল্লতার লাভ করবে এবং ঘুম চলে আসবে।

৫.ঘুমের দোয়া পাঠ করা

দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায় ঘুমানোর পূর্বে দোয়া পাঠ করা। এটিও হযরত মুহাম্মদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাই সালামের একটি সুন্নাত।

হযরত মোহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাই সালাম যখন ঘুমানোর ইচ্ছা করতে তখন তার ডান হাত তার গালের নিচে রাখতেন এরপর এই দোয়াটি বলতেন اللهم باسمك اموت الاحياء

উচ্চারণ :আললাহুমমা বিসমিকা আমুতু ওয়া আহইয়া।

অর্থ: হে আল্লাহ আপনার নাম নিয়েই আমি মরছি (ঘুমাচ্ছি) এবং আপনার নাম নিয়েই জীবিত (জাগ্রত) হবো। (বোখারী- ৬৩২৪)

পরিশেষে বলব : উপরে দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। যদি আমার লেখা ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই জানাবেন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন : 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

two + 7 =