এশার নামাজের নিয়ম

আপনি কি জানতে চান এশার নামাজের নিয়ম ? ইসলামের পাঁচটি ভিত্তি রয়েছে। এর মধ্যে নামাজ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এশার নামাজ অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কেননা হাদীস শরীফে আছে : যে ব্যক্তি এশার নামাজ এবং ফজরের নামাজ জামাতের সাথে পরে কেমন যেন সে সারা রাত দাঁড়িয়ে নামাজ পড়ল। অর্থাৎ সে সারারাত নামাজ পড়ার সওয়াব পাবে।

বুঝা গেল এশার নামাজের অনেক গুরুত্ব রয়েছে। আজ আমি এশার নামাজের নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করব। যাতে করে আপনি খুব সহজেই নিয়ম মেনে নামাজ সুন্দর ভাবে আদায় করতে পারেন।

এশার নামাজের নিয়ম

এশার নামাজের নিয়ম

নামাজের নিয়ম বলার আগে আমরা আলোচনা করব নামাজ কত রাকাত , সময় কখন ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। যাতে করে বিষয়গুলো স্পষ্ট হয়ে গেছে।

এশার নামাজ কয় রাকাত

এশারের মূলত 9 রাকাত । চার রাকাত ফরজ। দুই রাকাত সুন্নত। তিন রাকাত বেতের নামাজ। তিন রাকাত বেতের নামাজ। এই হিসেবে নয় রাকাত হলো। আরও চার রাকাত এশার নামাজ রয়েছে যেটাকে সুন্নত হিসেবে গণ্য করা হয় আর এই নামায টি এশারের ফরজ এর পূর্বে পড়া হয়। এই নামাজ টি হল সুন্নাতে গায়রে মুয়াক্কাদা। পড়লে সব পাবেন না পড়লে সমস্যা নেই।

এশার নামাজের সময়

এশার নামাজের সময় শুরু হয় মাগরিবের মোটামুটি এক থেকে দেড় ঘন্টা পরে। আর এশার নামাজ পড়া যায় ফজরের আগ পর্যন্ত। তবে রাত বারোটার আগে পড়া ভালো। রাত বারোটার পরে এশার নামাজ পড়া মাকরুহ।

এশার নামাজের নিয়ত

নামাজের নিয়ত আপনি বাংলায় করতে পারেন আবার আরবিতে করতে পারেন।

বাংলায় নিয়ত

আমি আল্লাহর ওয়াস্তে কেবলামুখী হয়ে এশারের চার রাকাত ফরজ নামাজ আদায় করতেছি। যদি আপনি জামাতের সাথে নামাজ আদায় করেন তাহলে বলবেন জামাতের সাথে আদায় করছে। আর যদি জামাতের সাথে আদায় না করেন তাহলে জামাতের কথা উল্লেখ করতে হবে না।

এশার নামাজের নিয়ম

এশার নামাজ বলতে এখানে আমি আলোচনা করব এশারের ফরজ নামাজ আদায় করার নিয়ম। এজন্য আল্লাহু আকবার বলে নামাজ শুরু করবেন। এরপর আউযুবিল্লাহ বিসমিল্লাহ সূরা ফাতিহা ও অন্য কোন সূরা মিলাতে।

তারপর রুকু সিজদা করে প্রথম রাকাত শেষ করবেন। এরপর আবার দ্বিতীয় রাকাতে জন্য দাঁড়াবেন। বিসমিল্লাহ সূরা ফাতিহা ও অন্য কোন সূরা মিলাবেন। তারপর রুকু এবং দুই সেজদা করে বসবেন।

এরপর তাশাহুদ পড়ে তৃতীয় রাকাতের জন্য দাঁড়াবেন। এরপর শুধু সূরা ফাতিহা পড়ে রুকু সেজদা করে তৃতীয় রাকাত শেষ করবেন। এরপর আবার চতুর্থ রাকাতের জন্য দাঁড়াবেন।

এরপর চতুর্থ রাকাতে শুধু সূরা ফাতিহা পড়ে রুকু এবং দুই সেজদা করে বসবেন। তারপর তাশাহুদ দুরুদ শরীফ ও দোয়ায় মাসুরা পরে দুই দিকে সালাম ছাড়াবেন। এভাবেই এশারের ফরজ নামাজ পড়তে হয়।

এশারের দুই রাকাত সুন্নত নামাজ পড়ার নিয়ম

নিয়তের ক্ষেত্রে শুধু সুন্নতের নিয়ত করবেন। বাকি সম্পূর্ণ নিয়ত ফরজ এর মতই।

উপরোক্ত নিয়মে নামাজ আদায় করবেন প্রথম রাকাত। এরপর দ্বিতীয় রাকাত পূর্বের নিয়মে আদায় করবেন। দ্বিতীয় রাকাতে দুই সিজদার দেওয়ার পর বসবেন। এরপর তাশাহুদ দরুদ শরীফ দোয়া মাসুরা পড়ে দুই দিকে সালাম ফিরাবেন।

বেতের নামাজ পড়ার নিয়ম

বেতের নামাজ ও পূর্বের নিয়মে আদায় করবেন। অল্প বলে দিচ্ছি দ্বিতীয় রাকাতে শুধু তাশাহুদ পড়ে তিন রাকাতে জন্য দাঁড়িয়ে যাবেন। এরপর সূরা ফাতিহা পরে অন্য সূরা মিলাবেন।

তারপর আল্লাহু আকবার বলে হাত কান পর্যন্ত উঠে আবার হাত বেঁধে দোয়ায়ে কুনুত পড়বেন। এরপর রুকু সেজদা করে নামাজ শেষ করবেন। আরো বিস্তারিত জানতে 

পরিশেষে বলব : উপরে এশার নামাজের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হলো। আপনি যদি সঠিকভাবে নামাজ পড়তে চান তাহলে উপরোক্ত নিয়ম গুলো ফলো করবেন। যদি এই লেখাটি ভাল লেগে থাকে এবং আপনাকে উপকার দিয়ে থাকে। তাহলে কমেন্ট করে অবশ্যই জানাবেন। এবং বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন :

Leave a Comment