চুল পড়া বন্ধ করার উপায় ৮ টি

 আপনি কি জানতে চান চুল পড়া বন্ধ করার উপায় ? চুল মানুষের সৌন্দর্য। ছেলে হোক মেয়ে হোক সবাই চুল পছন্দ করে। তবে পছন্দের মধ্যে তারতম্য রয়েছে কেউ চুলকে লম্বা রাখতে পছন্দ করে আবার কেউ চুলকে খাটো বা ছোট রাখতে পছন্দ করে।

অনেক সময় এই পছন্দের চুল বিভিন্ন কারণে পড়ে যায়। ফলে মাথা টাক হয়ে যায়। বা একেবারে ঘন চুল পাতলা হয়ে যায়। আরো নানারকম সমস্যা দেখা দেয়।

আজ আমি চুল পড়া বন্ধ করার উপায় বলবো। পাশাপাশি চুলকে নানারকম সমস্যা থেকে বাঁচানোর উপায় বলব। যাতে করে চুল পড়া বন্ধ হয়ে যায়।

চুল পড়া বন্ধ করার উপায়

চুল পড়া বন্ধ করার উপায়

এখানে আমি প্রায় ৮ টি উপায় বলবো। তবে এর আগে চুল পড়ার কারণ নিয়ে আলোচনা করব। যদি এই উপায়গুলো আপনি ফলো করেন এবং এ অনুযায়ী চুলকে পরিচর্যা করেন। তাহলে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে। চুলের সৌন্দর্য ফিরে আসবে এবং পাতলা চুল ঘন হয়ে যাবে।

চুল পড়ার কারণ

অনেকগুলো কারণেই চুল পড়ে । কয়েকটি কারণ দেয়া হলো : 

  • পুষ্টির অভাব অর্থাৎ পুস্টি কম থাকলে।
  • প্রচুর পরিমাণে টেনশন করা।
  • কম ঘুমানো
  • জেনেটিক এর কারণে
  • অতিরিক্ত ওষুধ সেবনের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার ফলে চুল পড়ে যায়।
  • পরিবেশ খারাপ বা দূষণ হলে
  • বয়সের কারণে চুল পড়ে
  • মাথায় বিভিন্ন ধরনের তেল ব্যবহার করলে

ইত্যাদি এরকম আরো অনেক কারণ রয়েছে এসব কারণে চুল পড়ে যায়।

১. অতিরিক্ত চুল পড়া বন্ধ করার উপায় হলো পেঁয়াজ ব্যবহার করা

পেঁয়াজ আমাদের সবার ঘরেই উপস্থিত থাকে। আপনি এই পিয়াজ এর মাধ্যমে খুব সহজেই চুল পড়া বন্ধ করতে পারবেন। কেননা পিয়াজ এর মধ্যে রয়েছে অনেক পরিমানে এন্টি ব্যাক্টেরিয়াল প্রপার্টিজ।

এটা আপনার চুলে থাকা বিভিন্ন ধরনের জীবাণুকে নিমিষেই মেরে ফেলে। ফলে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যায় পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের ইনফেকশন থেকে রক্ষা করে।

পিয়াজের মধ্যে আরেকটা জিনিস রয়েছে সেটা হলো সালফার হেয়ার ফলিকেস এটা আপনার চুলের মধ্যে রক্ত চলাচলকে খুব দ্রুত বাড়িয়ে দেয়। ফলে চুল পড়াকে রোধ করে বা বন্ধ করে দেয়।

চুলে পেঁয়াজ ব্যবহারের নিয়ম : যেকোনো একটি বা দুইটি পেঁয়াজ নিন। তারপর সেখান থেকে রস বের করুন। সম্পূর্ণ রস আপনার মাথায় ভালোভাবে মাখান অর্থাৎ ভালভাবে লাগিয়ে নিন।

পেঁয়াজের রস লাগানো অবস্থায় ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর শ্যাম্পু ইত্যাদি দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে তিন থেকে চার বার করুন।

2014 সালের একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে প্রায় 87 ভাগ লোকের মাথায় পেঁয়াজের রস ব্যবহার করার কারণে উপকার দিয়েছে। সুতরাং বুঝতেই পারছেন পেঁয়াজের রস চুল পড়া বন্ধের ক্ষেত্রে কতটা উপকারী।

২. আমলকি ব্যবহার করা

আপনি যদি আমলকি ব্যবহার করেন তাহলে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে পাশাপাশি চুল ঘন হয়ে যাবে। কেননা আমলকির মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি। যেটা চুলের মধ্যে পুষ্টি বাড়ায়।

আরেকটি বিষয় : অধিকাংশ সময় দেখা গিয়েছে ভিটামিন সি কমে গেলে চুল পড়া বেড়ে যায়। অতএব আপনি আমলকি ব্যবহার করতে পারেন। আবার আমলকি খেতেও পারেন।

ব্যবহার করার নিয়ম হলো : রাত্রে ঘুমানোর পূর্বে এক চামচ আমলকির রস এবং এক চামচ লেবুর রস মিশ্রিত করবেন একটি পাত্রের মধ্যে। তারপর ভালোভাবে মিশ্রণ করবেন।

এরপর আপনার চুলে ভালোভাবে লাগাবেন। তারপর ঘুম থেকে উঠে ধুয়ে ফেলবেন। এভাবে আপনি কয়েকদিন করলেই আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে।

৩. চিরতরে চুল পড়া বন্ধ করার উপায় হলো অলিভ অয়েল তেল , মধু ও জিরা মিশ্রন ব্যবহার করা

অলিভ অয়েল তেলের সাথে মধু ও জিরা মিশ্রন করে মাথায় মেসেজ করতে পারেন। এ পদ্ধতিটা অনেক কার্যকর। ব্যবহারের নিয়ম : একটি কাপের চার ভাগের এক ভাগ অলিভ অয়েল তেল নিবেন।

তারপর 1 চা-চামচ জিরা ঐ তেলের মধ্যে দিবেন। তারপর 5 থেকে 6 ঘন্টা এভাবে ভিজিয়ে রাখবেন। এরপর তেল কোন একটি জিনিসের মাধ্যমে সেকে ফেলে দিবেন।

তারপর কিছু মধু দিয়ে মিশ্রন করবেন কালোজিরাকে। এরপর সম্পূর্ণ চুলের গোড়ায় গোড়ায় পুরাটা মেসেজ করবেন। 30 থেকে 40 মিনিট মাথায় রাখবেন। তারপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন। এভাবে সপ্তাহে এক দিন অথবা দুই দিন ব্যবহার করবেন। তাহলে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে।

৪. মেথি ব্যবহার করা

যদি আপনি মেথি ব্যবহার করেন তাহলে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে। কেননা মেথির মধ্যে রয়েছে ভিটামিন। ফলে আপনার চুল পড়া বন্ধ করে দেয়।

আমলকি রাত্রে শোয়ার পূর্বে মেথি পানিতে ভিজিয়ে রাখবেন। তারপর সকালবেলা পানি ঝরিয়ে ফেলবেন। তারপর বেটে পেস্টের মতো করে নিবেন।

তারপর সমস্ত মাথায় লাগাবেন। তারপর এক ঘন্টা থেকে দুই ঘন্টা মাথায় রেখে দিবেন। তারপর শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন। এভাবে প্রতি সপ্তাহে একবার করতে পারেন। তাহলে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে।

৫. পুরুষের চুল পড়া বন্ধ করার উপায় হলো ডিমের পেস্ট ব্যবহার করা

মাথায় ডিমের পেস্ট ব্যবহার করলে চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে এবং চুল ঘন হবে। কেননা ডিমের মধ্যে রয়েছে আয়োডিন, সেলেনিয়াম , ফসফরাস ও সালফার। এ সমস্ত জিনিস চুল পড়া বন্ধ করে এবং চুলকে ঘন করে।

ডিমের পেস্ট বানানোর নিয়ম : ডিম ভেঙ্গে ডিমের সাদা অংশ নেবেন। তারপর অলিভ অয়েল তেল নিবেন এক চামচ। এর সাথে মধু মিশিয়ে নেবেন এক চামচ। তারপর পরিপূর্ণভাবে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করবেন।

তারপর সমস্ত মাথা অর্থাৎ চুলের আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত ভালোভাবে লাগাবেন। 30 থেকে 35 মিনিট এভাবে রাখবেন। তারপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন।

৬. চুল পড়া বন্ধ করার উপায় হলো নিয়মিত শরীর চর্চা করুন

কমপক্ষে প্রতিদিন 40 থেকে 50 মিনিট হাঁটুন। এর সাথে সাঁতার কাটতে পারেন। ফলে আপনার শরীরের হরমোনের ভারসাম্য ঠিক থাকবে। ফলে আপনার স্ট্রেসের এর মাত্রা একেবারে কমে যাবে। ফলে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে।

প্রতিদিন এবং প্রতিটা সময় আপনার মাথার চুল পরিস্কার রাখা প্রয়োজন। কেননা যদি পরিষ্কার না করা হয় তাহলে প্রতিটা চুলের গোড়ায় ময়লা জমাট বাঁধে। ফলে মাথায় খুশকি হয়

এবং নানান রকম সমস্যা হয়। তাই সব সময় মাথা পরিষ্কার রাখবেন এর ফলে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে।

৭. মাথায় গরম পানি ব্যবহার না করা

অর্থাৎ কখনো আপনি আপনার মাথায় গরম পানি ব্যবহার করবেন না। কেননা গরম পানি ব্যবহার করলে চুলের গোড়া নরম হয়ে যায়। এবং নানা রকম সমস্যা হয়। ফলে চুল পড়া শুরু করে।

৮. ভেজা মাথা কখনো আঁচড়াবেন না 

ভিজা মাথা আঁচড়ালে চুল পড়ে যায়। কেননা মাথা ভিজা অবস্থায় চুলের গোড়া খুবই নরম থাকে। যখন মাথা আঁচড়ানো হয় তখন চুল খুব সহজে উঠে যায়। অতএব কখনো চিরুনি দিয়ে ভিজা মাথা আঁচড়াবেন না।

পরিশেষে বলব : উপরে চুল পড়া বন্ধ করার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। অতএব আপনি যদি উপরের টিপসগুলো ফলো করেন এবং এ অনুযায়ী চুলকে যত্ন নেন।

তাহলে অবশ্যই আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে এবং চুলের সৌন্দর্য ফিরে আসবে। যদি আমার লেখা ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই জানাবেন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন : 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

five × 2 =