ওজন কমানোর উপায় ৭টি

আপনি কি জানতে চান ওজন কমানোর উপায় ? শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা খুবই প্রয়োজন। কেননা শরীরের ওজন যদি নিয়ন্ত্রণে না থাকে বরং বেড়ে যায় তাহলে শরীরের নানান রকম রোগ দেখা দেয়।

তাই অনেকেই শরীরের ওজন কমাতে অনেক রকম চেষ্টা করে। এর জন্য কেউ কিটো ডায়েট করে। আবার কেউ কেউ খাবার নিয়ন্ত্রণ করে।

ইত্যাদি নানা রকম চেষ্টা করে। কেউ সফল হয় আবার কেউ সফল হয় না। আজ আমি ওজন কমানোর উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

ওজন কমানোর উপায়

ওজন কমানোর উপায়

এখানে আমি প্রায় ৭ টি উপায় নিয়ে আলোচনা করব। যদি এগুলো ফলো করেন তাহলে হান্ডেট পার্সেন আপনার শরীরের ওজন কমে যাবে। শরীর চাঙ্গা হবে।

১. ঠিকমতো ঘুম পাড়া

পরিমাণ মতো ঘুম না পাড়লে শরীরে অনেক ক্ষতি হয় । ফলে শরীরের ওজন বাড়ে। পাশাপাশি মানসিক সমস্যা হয়। আরো নানারকম সমস্যা হয়।

তাই আপনাকে পর্যাপ্ত পরিমাণ প্রতিদিন ঘুম পাড়তে হবে। এজন্য আপনি প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ ঘন্টা ঘুমাতে পারেন। এতে আপনার মানসিক অবস্থা ভালো থাকবে। এবং আপনার শরীর ঠিক থাকবে। ফলে ওজন বাড়বে না।

২. দ্রুত ওজন কমানোর উপায় হলো কার্বোহাইড্রেড যুক্ত খাবার বাদ দিতে হবে

অত্যাধিক ক্যালোরির কার্বোহাইড্রেড যুক্ত খাবার শরীরের ওজন বৃদ্ধি করে। যেমন সাদা আটা থেকে উৎপাদিত খাবার। এ সমস্ত খাবার বাদ দিতে হবে।

তবে এর পরিবর্তে শস্য হইতে উৎপন্ন খাবার খেতে পারেন। যেমন লাল আটা হইতে উৎপাদিত খাবার। এটা আপনার খাবার আস্তে আস্তে হজমের ক্ষেত্রে সহায়তা করে।

এ কারণে ক্ষুধা খুব কম লাগবে। আঁশযুক্ত খাবার বেশি বেশি খেতে হবে । যেমন : ডাউল , শাকসবজি , টক ফল ইত্যাদি।

৩. প্রতিদিন গরম পানি খাবেন

এটা আপনার শরীরের ওজন কমাতে অনেক সাহায্য করবে। কেননা গরম পানি শরীরের টক্সিন দূর করে দেয়। পাশাপাশি শরীরের মধ্যে যে অতিরিক্ত মেদ জমে তা দূর করে দেয়। এই গরম পানি আরো নানারকম কাজ করে আপনার শরীরের মধ্যে। অতএব নিয়মিত গরম পানি খাবেন।

৪. ৭ দিনে ১০ কেজি ওজন কমানোর উপায় হলো প্রোটিন যুক্ত খাবার ও শাকসবজি বেশি বেশি খাওয়া

শাকসবজি শরীরের ওজন কমানোর ক্ষেত্রে অনেক বড় ভূমিকা রাখে। কেননা শাকের মধ্যে রয়েছে অনেক পুষ্টি এবং ক্যালোরি কম। শাকসবজির জাতীয় খাবার হচ্ছে : ফুলকপি , বাঁধাকপি, শসা, টমেটো , শাক ইত্যাদি।

এ সমস্ত খাবার খেলে আপনার শরীরে ফ্যাট তৈরি হয় না। ফলে আপনার শরীরের ওজন বাড়ে না। বরং ওজন কমে যায় এবং শরির সতেজ ও চাংগা থাকে ।

৫. ওজন কমানোর উপায় ডায়েট চাট

3 বেলা সময় মত খাবার খাওয়া। কেননা নিয়মিত খাবার খেলে আপনার শরীরের হজম প্রক্রিয়াকে কিছুটা বিশ্রাম দেয়। আপনার ডায়েটের চার্ট হিসেবে তিন বেলা অর্থাৎ সকাল , দুপুর, রাত্রি নিয়মিত খাবার খান।

নিয়মিত খাবার খেলে শরীরের ডাইজেস্ট প্রক্রিয়া ভালো থাকে। ডাইজেস্ট প্রক্রিয়া ভালো থাকার কারণে আপনার শরীরের ওজন বৃদ্ধি পাবে না বরং কমবে। রাতের খাবার কখনো বাদ দিবেন না।

অল্প পরিমাণ হলেও খাবেন। রাত্রে ঘুমানোর ৩-৪ ঘণ্টা আগে খাবার খাবেন। হাই কোয়ালিটি খাবার রাত্রে না খাওয়া ভালো। স্বাভাবিক খাবার খাবেন রাত্রি বেলা।

প্রতি বেলা খাবার খাওয়ার পরে ১৫-২০ মিনিট হাঁটা চলা করুন। এটা আপনার শরীরের মধ্যে মেটাবোলিজম বাড়াবে। পাশাপাশি শরীরে অতিরিক্ত মেদ জমবে না। আর যখন মেদ পারবে না তখন ওজন বৃদ্ধি পারবে না বরং ওজন কমবে।

খাবারের ডায়েট চাট

সকালবেলা : কফি বা চা দুধ ছাড়া , লাল আটার রুটি তৈরি , সিদ্ধ সবজি এক বাটি , কাঁচা শসা এক বাটি । কেননা শসা শরীরের ওজন কমাতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

মধ্য দুপুরে : টক জাতীয় ফল ও একটি ডিমের সাদা অংশ।

দুপুরের খাবার : চাউলের ভাত 50 থেকে 70 গ্রাম। পরিপূর্ণ একবাটি মুরগি বা মাছের ঝোল , একবারটি শাকসবজি , সালাদ রাখতে পারেন শসার। ডাল একবাটি টক দই ২৫০ গ্রাম।

বিকাল : কফি বা চা দুধ ছাড়া, বিস্কুট দুইটা অথবা মুড়ি।

রাতের খাবার : দুইটি লাল আটার রুটি। সবুজ তরকারি একবারটি , ডাল একবাটি , এক বাটি সালাদ টক দই দিয়ে।

৬. গ্রিন-টি খাওয়া

আপনি যদি প্রতিদিন কমপক্ষে চার কাপ গ্রিন-টি খান তাহলে আপনার শরীরের ওজন দ্রুত কমে যাবে। কেননা এভাবেই যদি প্রতিদিন পান করা হয়।

তাহলে ১সপ্তাহে কমপক্ষে আপনার 400 ক্যালোরি পর্যন্ত দূর হয়ে যায়। এন্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে গ্রিন টি এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণ। অতএব কমপক্ষে প্রতিদিন চার কাপ গ্রিন টি পান করুন।

৭. ব্যায়াম করতে হবে

ওজন কমানোর জন্য ব্যায়াম অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ব্যায়াম আপনার শরীরে অনেকগুলো উপকার করে। যার ফলে ওজন কমে যায়। তাই অবশ্যই নিয়মিত ব্যায়াম করবেন।

পরিশেষে বলব : উপরে ওজন কমানোর উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আপনি যদি বাস্তবিকপক্ষে শরীরের ওজন কমাতে চান তাহলে উপরের উপায় গুলো অবশ্যই ফলো করবেন।

তাহলে খুব সহজেই আপনার শরীরের ওজন কমে যাবে। উপরে লেখা যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন : 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

sixteen − twelve =