১ লাখ টাকায় ব্যবসা শুরু করুন খুব সহজেই 2022

আপনি কি জানতে চান ১ লাখ টাকায় ব্যবসা কি কি ? বর্তমান সময়ে ব্যবসা সবাই করতে চায়। কিন্তু সঠিক গাইডলাইন না থাকার কারণে ব্যবসায় সফল হতে পারেনা।

অনেকেই মনে করে ব্যবসা করতে অনেক পুজি লাগে। অথচ আপনি অল্প পুঁজি দিয়ে ব্যবসা করলে ভালো পরিমাণ টাকা মুনাফা অর্জন করতে পারেন।

অতএব আজ আমি বলব ১ লাখ টাকায় ব্যবসা সম্পর্কে অর্থাৎ কোন কোন ব্যবসা করতে পারবেন এই ১ লাখ টাকা দিয়ে ।

পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের খুটি-নাটি বিষয়গুলি উল্লেখ করব। যাতে করে খুব সহজেই আপনি সঠিক গাইডলাইন পান ও সফলতা অর্জন করতে পারেন।

১ লাখ টাকায় ব্যবসা ২০২২

অনেক ধরনের ব্যবসা করতে পারবেন এই ১ লাখ টাকা দিয়ে । এখানে আমি প্রায় ৫টি ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব।

১/ গাছের চারা লাগানো

অর্থাৎ আপনি শহরে থাকেন অথবা গ্রামে থাকেন অবশ্যই আপনার কিছুনা কিছু জমি রয়েছে।

এই জমিতে গাছের চারা লাগাতে পারেন। গাছের চারাকে দুই ভাগে ভাগ করবেন।

এক. ফল জাতীয় চারা বপন করবেন। এখান থেকে আপনি প্রতিবছর মুনাফা অর্জন করতে পারবেন। যেমন আম গাছ , পেয়ারা গাছ ইত্যাদি।

দুই. ঐ সমস্ত গাছের চারা বপন করবেন যে সমস্ত গাছ থেকে কাঠ তৈরি হয়। কেননা কাঠের মূল্য অনেক বেশি।

আপনি যদি ১৫ থেকে ২০ বছর অপেক্ষা করেন তাহলে প্রতিটা গাছকে ৫০ থেকে ৬০ হাজার দরে বিক্রি করতে পারবেন।

অতএব আপনি অনুমান করুন মাত্র কিছু টাকা ব্যয় করে কতটা মুনাফা অর্জন করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে।

আরেকটি বিষয় বলি ১ লাখ টাকায় ব্যবসা হিসেবে অর্থাৎ ১ লাখ টাকায় আপনি প্রচুর গাছের চারা পাবেন কেননা চারার মূল্য কম হয়ে থাকে।

১ লাখ টাকায় ব্যবসা

২/ ১ লাখ টাকায় ব্যবসা হলো খাবারের দোকান দেওয়া

এই ব্যবসাটা খুবই লাভজনক। কেননা এই ব্যবসায় চাহিদা অনেক বেশি। বর্তমানে অধিকাংশ মানুষই বাহিরের খাবার খেতে পছন্দ করে।

অতএব আপনি এই সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেন। এই ব্যবসায় সফলতা লাভ করার জন্য অবশ্যই আপনাকে তিনটি বিষয় ফলো করতে হবে।

  • ভালো জায়গা নির্বাচন করা। অর্থাৎ এমন একটি স্থানে জায়গা নির্বাচন করবেন যেখানে লোকদের সমাগম বেশি। গ্রামে হলে বাজার আর শহরে হলে কোন একটি নামকরা স্থান যেখানে সকলেই আসে যেমন গুলিস্থান, সাভার ইত্যাদি। এই সমস্ত স্থানে লোকের সমাগম বেশি।
  • খাবারের মান ভালো করা। অর্থাৎ এমন ভাবে খাবার তৈরি করা যাতে করে একবার খেলে দ্বিতীয়বার আবার খাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করে।
  • অবশ্যই নতুন নতুন খাবারের আইটেম রাখা। যাতে করে আপনার দোকানে নতুন নতুন খাবার খাওয়ার জন্য ভিড় করে।

/ কফিশপ এবং চায়ের দোকান দেওয়া

বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি ব্যবসা এবং চাহিদা পূর্ণ একটি ব্যবসা ‌। কেননা প্রতিটা মানুষই চা বা কফি খেতে পছন্দ করে।

তাই আপনি এই সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেন। এই ব্যবসায়ও সফলতা লাভ করার জন্য কয়েকটি কাজ করতে হবে।

  • ভালো জায়গা নির্বাচন করা ।
  • কফি বা চায়ের মাঝে আলাদা কোন ফ্লেভার যুক্ত করার চেষ্টা করা। যাতে করে মানুষ ঐ ফ্লেভারের কারণে আপনার কাছ থেকে কফি বা চা খেতে পছন্দ করে এবং বার বার আপনার কাছে ফিরে আসে। যদি ফ্লেভার না দিতে পারেন তাহলে সমস্যা নেই তবে অবশ্যই মজা হতে হবে যাতে করে একবার খেলে দ্বিতীয় বার খাওয়ার ইচ্ছা বোধ করে।
  • মানুষদের সাথে ভালো ব্যবহার করা।

মজা করে চা বা কফি বানানোর জন্য আপনি ট্রেনিং নিতে পারেন। যাতে করে খুব সহজেই এ কাজের দক্ষতা লাভ করতে পারেন।

আরো পড়ুন :

৪/ ১ লাখ টাকায় ব্যবসা হলো ফলের জুসের দোকান দেওয়া

এই ব্যবসায়ও বর্তমানে অনেক চাহিদাও রয়েছে। কেননা মানুষ ফলের জুস খেতে পছন্দ করে। অতএব আপনি অল্প পুঁজিতে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

তবে অবশ্যই আপনাকে কিছু বিষয় ফলো করতে হবে সফলতা লাভ করার জন্য।

  • ভালো জায়গা নির্বাচন করা।
  • নতুন নতুন বিভিন্ন ফলের জুস তৈরি করা।
  • উৎকৃষ্ট এবং ভালো ফল দিয়ে জুস তৈরি করা। যাতে করে জুসের মান বেড়ে যায় । ফলে গ্রাহক আপনার কাছে বারবার আসবে ফলের জুস খেতে।

এভাবে আপনি খুব সহজেই সফলতা লাভ করতে পারবেন।

৫/ দুধ সাপ্লাইয়ের ব্যবসা

এই ব্যবসায় প্রচুর পরিমাণে লাভ করতে পারবেন। কেননা দুধের চাহিদা প্রচুর পরিমাণে রয়েছে।

এ ব্যবসা করার জন্য আপনাকে কয়েকটি বিষয় ফলো করতে হবে তাহলে খুব সহজেই লাভ করতে পারবেন এবং সফলতা অর্জন করতে পারবেন।

  • ভালো এবং উৎকৃষ্টমানের দুধ সাপ্লাই করা। কোন ধরনের ধোঁকাবাজি না-করা লাভ বেশি করার জন্য। আর ধোঁকাবাজি অর্থাৎ পানি মিশ্রন করে দুধ সাপ্লাই করা ইত্যাদি।
  • বিভিন্ন গ্রামের বাজার থেকে দুধ সংগ্রহ করা অথবা সৎ ও ভালো গোয়ালদের কাছ থেকে দুধ সংগ্রহ করা । এখানে সৎ ও ভালো এর শর্ত করা হয়েছে যাতে করে কোন ধরনের ধোঁকাবাজি না করে।
  • সময়মতো দুধ সাপ্লাই করা।

আপনি ইচ্ছা করলে এই ব্যবসাটি শহরে করতে পারেন অথবা গ্রামেও করতে পারেন। শহরে করলে লাভবান বেশী হবেন।

কেননা শহরের লোকেরা ভালো দুধ তালাশ করে বা খোঁজ করে। অতএব আপনি কি সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেন।

যাদের কাছে সাপ্লাই করবেন প্রথমে আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করবেন যে আপনি তাদেরকে ভালো পরিমাণ দুধ দেবেন।

এবং তাদেরকে বিশ্বাস যোগাবেন যে আপনি অবশ্যই ভালো পরিমাণ দুধ দিতে পারবেন তাহলে দেখবেন তারা আপনার কাছ থেকে দুধ কিনতে আগ্রহ বোধ করবে।

আর এই ব্যবসা আপনি অল্প পুজিতে করতে পারবে কোন ধরনের প্রবলেম ছাড়াই। এ দুধের সাথে সাথে আপনি খাঁটি ঘি, দই, ছানা ইত্যাদিও সাপ্লাই করতে পারেন।

পরিশেষে বলব : এখানে ১ লাখ টাকায় ব্যবসা হিসেবে ৫টি ব্যবসা সম্পর্কে মোটামুটি ধারণা দিলাম আশা করি আপনাদের উপকারে আসবে। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন :-

  1. অনলাইনে পণ্য বিক্রয় করে আয় করুন
  2. উদ্যোক্তা হওয়ার উপায় | সফল উদ্যোক্তা হওয়ার মূলমন্ত্র

Leave a Comment