অনলাইন পাঠদান মনিটরিং ২০২২

আপনি কি জানতে চান অনলাইন পাঠদান মনিটরিং সম্পর্কে। 2022 সালে এসে আবার নতুন করে করোনার প্রকোপ দেখা দিয়েছে।

ধীরে ধীরে করোনা বাড়ছে। ফলে সরকারের পক্ষ থেকে ঘোষণা এসেছে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকবে।

তাই আমাদের মনের মাঝে একটি প্রশ্ন আছসে অনলাইন পাঠদান মনিটরিং সম্পর্কে ।

আমি আজকে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করব। যাতে করে কোনো ধরনের সংশয় না থাকে।

অনলাইন পাঠদান মনিটরিং

অনলাইন পাঠদান মনিটরিং ২০২২

সরকারের পক্ষ থেকে 6 ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার ঘোষণা এসেছে। এই বন্ধের সময় অনলাইনে ক্লাস করার করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  

এখানে শুধু অনলাইনে ক্লাস এর ব্যাপারে বলা হয়েছে। মনিটরিং এর ব্যাপারে কোন কথা বলা হয়নি।

আর এই সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে 12 থেকে 17 বছর বয়স পর্যন্ত সমস্ত শিক্ষার্থীদেরকে করোনার টিকা দেওয়ার আদেশ করা হয়েছে।

পাশাপাশি সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা হিসেবে এটাও বলা হয়েছে প্রধান শিক্ষক ইচ্ছে করলে সে বিভিন্ন শিক্ষক-কর্মচারীদের কে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিভিন্ন দায়িত্বে নিয়োজিত রাখতে পারবেন।

অনলাইন ক্লাসের ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রীর বক্তব্য

শিক্ষা মন্ত্রী দীপু মনি বলেন : বর্তমানে সময়ে অর্থাৎ বন্ধের এই সময়ে অনলাইনে ক্লাস , এসাইনমেন্ট ইত্যাদির মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা পরিচালনা করা হবে।

এখানে শুধু অনলাইনে ক্লাস এর ব্যাপারে বলা হয়েছে। মনিটরিং এর ব্যাপারে কোন কথা বলা হয়নি।

 

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ১১টি দফা দিয়েছে সরকার

  1. 6 ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সশরীরে বন্ধ থাকবে।
  2. 12 থেকে 17 বয়সী সমস্ত শিক্ষার্থীদেরকে করোনার টিকা দিতে হবে।
  3. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার সময় গবেষণাগার পাঠাগার সহ প্রতিষ্ঠানের টেলিফোন , ইন্টারনেট পানি গ্যাস বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করতে হবে পাশাপাশি সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে।
  4. বন্ধের সময় প্রতিষ্ঠানের সম্পদ রক্ষণাবেক্ষণ এর প্রতি লক্ষ্য রাখতে হবে ।
  5. প্রয়োজন অনুযায়ী প্রধান শিক্ষক স্বাস্থ্যবিধি মেনে অন্যান্য শিক্ষক-কর্মচারীদেরকে বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত রাখতে পারেন।
  6. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কার্যালয় চালু থাকবে।
  7. জাতীয় মাদ্রাসা , স্কুল আপাতত পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত থাকবে ।
  8. নিয়মিত প্রতিষ্ঠান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে ।
  9. প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সমস্ত শিক্ষকদেরকে টিকা নিতে হবে।
  10. যে সমস্ত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অবস্থান করছে তাদের সুবিধার্থে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ছাত্রাবাস খোলা থাকবে। অবশ্যই তারা স্বাস্থ্যবিধি এর নিয়ম কঠিন ভাবে মেনে চলবে।

পরিশেষে বলব : অনলাইন পাঠদান মনিটরিং সম্পর্কে আলোচনা হল। আশা করি আপনাদের উপকার হয়েছে। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন : পরীক্ষায় ভালো করার উপায়

Leave a Reply

Your email address will not be published.

5 − 5 =