টাকা ছাড়া ব্যবসা করার উপায় কি ? সকলের জানা প্রয়োজন

আপনি কি জানতে চান টাকা ছাড়া ব্যবসা করার উপায় অথবা how to start a business without money ? প্রতিটি মানুষের স্বপ্ন থাকে ব্যবসা করার ।

কিন্তু অনেক মানুষেরই স্বপ্ন পূরণ হয়না টাকা না থাকার কারণে । কেননা সবার ধারণা পুঁজি ছাড়া ব্যবসা করা যায় না। সকলেই ভুল ধারণার মধ্যে রয়েছে।

কারণ বাস্তব কথা হলো টাকা ছাড়া ব্যবসা করা যায়। এটা কোন হাস্যকর বিষয় নয়।

আজ আমি টাকা ছাড়া ব্যবসার ব্যাপারে বিস্তারিতভাবে আপনাদের সামনে তুলে ধরব যার ফলে আপনি নিশ্চিতভাবে বিশ্বাস করতে পারবেন যে পুঁজি ছাড়া অবশ্যই ব্যবসা করা সম্ভব।

টাকা ছাড়া ব্যবসা

টাকা ছাড়া ব্যবসা করার পদ্ধতি

বর্তমান এ যুগে যেরকম ভাবে সমস্ত জিনিসের মধ্যে পরিবর্তন এসেছে ঠিক তেমনিভাবে ব্যবসার ধরন হাজার হাজার গুণ বেড়ে গেছে।

অর্থাৎ দিন যত যাচ্ছে নতুন নতুন ব্যবসা মার্কেটে বেড়েই চলছে। বর্তমানে এমন এমন ব্যবসা রয়েছে যেগুলোর মধ্যে শুধু আপনার মেধা

এবং আপনার যোগ্যতা কাজে লাগবে কোন টাকা পয়সা লাগবে না। কয়েকটি পদ্ধতি নিচে দেওয়া হল :

১/ রিয়েল এস্টেট বিজনেস

রিয়েল এস্টেট ব্যবসা কি ?

রিয়েল এস্টেট হল এমন একটি ব্যবসা যেখানে শুধু আপনার শ্রম এবং মেধা কাজ করবে। এখানে কোন ইনভেস্ট বা টাকা খরচ হবে না।

কেননা রিয়েল এস্টেট বলা হয় এমন একটি মাধ্যমকে যেখানে কারো জমি বিক্রি করে দেওয়া , বিল্ডিং বা ঘরবাড়ি ভাড়া দেওয়া ইত্যাদি । এসব কাজ করার ফলে আপনি ভালো পরিমাণে কমিশন পাবেন।

তবে এই ব্যবসা করার ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে।

২/ টাকা ছাড়া ব্যবসা হলো ব্যবসার জন্য পরিকল্পনা করা

অবশ্যই ব্যবসা শুরু করার জন্য টাকা প্রয়োজন। তবে টাকার কথা বাদ দিয়ে সর্বপ্রথম আপনাকে ব্যবসা নিয়ে গবেষণা করতে হবে।

তারপর টাকা নিয়ে ভাববেন। ব্যবসার জন্য যে সমস্ত বিষয়ে গবেষণা করবেন সেগুলো হলো:

  1. সর্বপ্রথম আপনাকে বাছাই করতে হবে গ্রাহকরা কোন ধরনের পণ্য বেশি পছন্দ করে।
  2. মার্কেটে কোন ধরনের পণ্যের প্রচলন বেশি
  3. তারপর হিসেব করবেন শুধু পণ্যের ব্যবস্থা করতে কতটুকু টাকা খরচ হতে পারে
  4. পণ্য ব্যবস্থা করার জন্য যে সমস্ত খরচ হয় যেমন প্যাকেটিং খরচ, আনা-নেওয়ার খরচ ইত্যাদি এসমস্ত বিষয় হিসাব রাখবেন।
  5. আপনার প্রতিযোগীদের প্রতি পর্যবেক্ষণ করতে হবে তারা কিভাবে ব্যবসা করছে ?
  6. ব্যবসা ধীরে ধীরে কিভাবে উন্নতি হবে এসব বিষয়ে চিন্তা করতে হবে
  7. আরেকটি বিষয় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সেটা হল ব্যবসা করতে গেলে অনেক সময় বিভিন্ন বিপদ আপদের সম্মুখীন হতে হয় তখন আপনার এই বিপদ থেকে উদ্ধার হয়ে ব্যবসাকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে পরিকল্পনা করতে হবে। অর্থাৎ আপনাকে অবশ্যই বিভিন্ন পরিস্থিতির মোকাবেলা করার জন্য নিজেকে প্রস্তুত রাখতে হবে।

যখন আপনি একটি ব্যবসা সম্পর্কে পরিপূর্ণ ভাবে পরিকল্পনা করবেন তখন বিভিন্ন বড় বড় ইনভেস্টরদের সাথে আপনার পরিকল্পনা সম্পর্কে জানাবেন।

যদি আপনার পরিকল্পনা বাস্তবিকপক্ষে ভালো হয় তাহলে অবশ্যই তারা আপনার পরিকল্পনার উপর ব্যবসা শুরু করে দিবে এক্ষেত্রে আপনি ভাল ধরনের ইনকাম করতে পারবেন শুধু আপনার এই পরিকল্পনার কারণে।

অতএব এই সিস্টেমে আপনি ফ্রিতে পরিকল্পনা দিয়ে ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

৩/ পুঁজি ছাড়া ব্যবসা করার  উপায় হলো পণ্যের মার্কেটিং করা

পুঁজি ছাড়া ব্যবসা

আপনার যদি মার্কেটিংয়ে অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে আপনি মার্কেটিং করে ভালো টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এক্ষেত্রে কোন টাকা লাগবে না। বিষয়টি আরো বুঝিয়ে বলছি।

যখন মার্কেটে নতুন কোন প্রোডাক্ট আসে তখন তারা বিভিন্ন অফার দেয় পণ্য বিক্রি করার। আপনি ওই কোম্পানির প্রোডাক্ট বিক্রি করে দিয়ে ভালো কমিশন লাভ করতে পারবেন।

অথবা অনেকেই মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ না থাকার কারণে পণ্য বিক্রি করতে পারছেনা আপনি তাদের সাথে চুক্তি করে কমিশনের ভিত্তিতে ওই পণ্য বিক্রি করে দিতে পারেন ।

এই ব্যবসাটি বা এই পদ্ধতিটি বর্তমানে অনেক লোক করছে। অতএব আপনিও টাকা ছাড়া ব্যবসায় হিসেবে এই পদ্ধতিটি অবলম্বন করতে পারেন।

৪/ টাকা ছাড়া ব্যবসা করার উপায় হলো রাইড শেয়ারিং ব্যবসা

বর্তমানে আমাদের দেশে কিছু রাইড শেয়ারিং সার্ভিস চালু হয়েছে।

যারা লোকদেরকে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে খুব অল্প সময় নিয়ে যায়। যেমন পাঠাও ডট কম।

এই কোম্পানি পেসেঞ্জার এবং যে পেসেঞ্জার বহন করবে তাদের মাঝে সংযোগ স্থাপন করে দিচ্ছে।

এর ফলে সে মাঝখান থেকে কমিশন গ্রহণ করছে। আপনিও এ ব্যবসা শুরু করতে পারেন ।

এ ব্যবসায় শুধু মেধা কাজ করছে ও শ্রম কাজ করছে। টাকা-পয়সা মোটেও খরচ হচ্ছে না।এরকম আরো অনেক সার্ভিস প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যারা বিভিন্ন রকমের সার্ভিস দিয়ে থাকে।

আর মাঝখান থেকে কোম্পানি কমিশন লাভ করে কোন টাকা পয়সা ছাড়াই। যেমন কয়েকটি উদাহরণ দেয়া হলো :

  • কোন কোন কোম্পানি বাড়িতে বাড়িতে কাজের লোক ব্যবস্থা করে দেয়
  • কেউ আবার বাসা বদলানোর লোক ঠিক করে দেয়। আর এর বিনিময় কমিশন লাভ করে।
  • ইলেকট্রিশিয়ান ব্যবস্থাপনা করার জন্য কাজ করে। এর ফলে তারা কমিশন লাভ করেন।
  • অনেক কোম্পানি এরকম রয়েছে যারা বাজার থেকে তাজা তাজা সবজি থেকে শুরু করে বিভিন্ন কাঁচামাল ক্রয় করে আপনার বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার জন্য লোক ব্যবস্থা করে। ফলে এই কাজের জন্য কমিশন গ্রহণ করে।

ইত্যাদি এরকম আরো অনেক পদ্ধতি রয়েছে। এ সমস্ত কোম্পানি শুধু সংযোগ স্থাপন করে দেওয়ার জন্য ভালো পরিমাণে কমিশন আদায় করে। এ সমস্ত ব্যবসা টাকা ছাড়া করা সম্ভব। তবে শুধু দুইটা জিনিস আপনাকে কাজে লাগাতে হবে ১. মেধা ২. শ্রম

৫/ গ্রামের পণ্য শহরে বিক্রি করা

গ্রামের লোকেরা অনেক সহজ সরল হয়। যার ফলে তারা শহরে গিয়ে সরাসরি পণ্য বিক্রি করতে পারে না। যার কারণে শহরের বড় বড় কোম্পানিরা গ্রামের লোকদের কাছ থেকে পণ্য কিনে বিভিন্ন প্রতিনিধির মাধ্যমে।

আর এই প্রতিনিধিরা মাঝখান থেকে ভালো পরিমাণে কমিশন লাভ করেন। নিচে কয়েকটি ক্রয় বিক্রয়ের পদ্ধতি বলা হলো :

  1.  ব্রয়লার মুরগি অথবা তার ডিম বিক্রি করা
  2. ধান বিক্রি করে দেয়া
  3. সরিষা বিক্রি করে দেওয়া
  4. মাছ বিক্রি করা
  5. পেঁপে থেকে শুরু করে এরকম নানান জাতীয় কাঁচা সবজি
  6. চাউল বিক্রি করা

ইত্যাদি এরকম অনেক ধরনের ব্যবসা রয়েছে। অতএব আপনি কোন ধরনের ভীত না হয়ে এ কাজ করতে পারেন। ফলে আপনি প্রচুর পরিমাণে কমিশন লাভ করতে পারবেন। আর এই ব্যবসায় কোন টাকার প্রয়োজন পড়ে না।

৬/ টাকা ছাড়া ব্যবসা হলো দেওয়ালে পেইন্টিং এর ব্যবসা

বর্তমান সময়ে প্রত্যেকটি মানুষই চায় নিজের দোকান হোক অথবা কোন প্রতিষ্ঠান হোক অথবা বাড়ি হোক সুন্দর করে রাখতে ও দেওয়ালকে আকর্ষণীয় করে রাখতে। তাই তারা দেওয়ালে পেইন্টিং করে।

অতএব আপনি দেওয়ালে পেইন্টিংয়ের কাজ করার ব্যবসাটা শুরু করে দিতে পারেন।

যদি এ ব্যাপারে আপনার অভিজ্ঞতা থাকে। কেননা টাকা ছাড়া এই ব্যবসা করতে পারবেন।

তবে আপনার এ কাজ করতে ধৈর্যশীল হতে হবে এবং তাড়াহুড়া করে কাজ করবেন না অন্যথায় পেইন্টিং অসুন্দর হবে। এ ব্যাপারে অবশ্যই খেয়াল রাখবেন।

৭/ টাকা ছাড়া ব্যবসা করার উপায় হলো  পুরাতন জিনিস বিক্রি করার ব্যবসা

টাকা ছাড়া ব্যবসা

বর্তমান সময়ে অনেকেই পুরাতন মোবাইল ,গাড়ি ইত্যাদি এগুলো বিক্রি করে ফেলে বিভিন্ন কারণে। তবে অনেকেই বিক্রি করতে পারে না বিভিন্ন ব্যস্ততার কারণে অথবা লজ্জার কারণে অথবা সঠিক দাম না পাওয়ার কারণে।

অতএব আপনি এরকম পুরাতন জিনিস বিক্রি করে দিয়ে কমিশন নিতে পারেন।

এক্ষেত্রে আপনার কোন টাকা খরচ করতে হবে না তবে অবশ্যই পরিশ্রম করতে হবে । আর গ্রাহক খুঁজতে হবে। গ্রাহক খোঁজার ক্ষেত্রে দুইটি পথ অবলম্বন করতে পারেন

  • আপনি সরাসরি গ্রাহক খোঁজে বিক্রি করতে পারেন।
  • অনলাইনের মাধ্যমে প্রচার-প্রসার করে বিক্রি করে দিতে পারেন। যেমন : বর্তমানে এমন কিছু মার্কেটপ্লেস রয়েছে । যেখানে পুরাতন জিনিস ক্রয় বিক্রয় করা হয়।

যেমন : Bikroy.com , পাশাপাশি বর্তমানে ফেসবুকও একটি ফিচার চালু করেছে যেখানে নতুন পুরাতন সব কিছুই বিক্রি করা যায় ।

৮/ টাকা ছাড়া ব্যবসা  হলো ড্রাইভিং শেখানোর ব্যবসা

বর্তমানে অনেক মানুষই গাড়ি চালানো শিখতে চায়। আপনি ঐ সমস্ত লোকদেরকে গাড়ি চালানো শেখাতে পারেন।

আর এর ফলস্বরূপ ফিস হিসেবে 3-4 হাজার টাকা নিতে পারেন।

ব্যবসায় আপনার কোন টাকা খরচ হবে না শুধু আপনার পরিশ্রম এবং মেধা খরচ হবে।

আরেকটি বিষয়: আপনার যদি গাড়ি থাকে তাহলে অনেক ভালো অন্যথায় যারা শিখতে আসবে তাদের গাড়ি দিয়ে শিখিয়ে দিবেন।

৯/ পড়ানোর ব্যবসা

বর্তমান সময়ে সব মা-বাবা চায় তার সন্তানকে প্রাইভেট পড়াবে।

অতএব আপনি প্রাইভেট পড়িয়ে বা টিউশন করে ভালো টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এক্ষেত্রে টাকা ছাড়া ব্যবসা করা সম্ভব।

ইচ্ছে করলে আপনি বিভিন্ন ব্যাচ তৈরি করে পড়াতে পারেন অথবা অনলাইনেও পড়াতে পারেন ঘরে বসে বসে।

পরিশেষে বলব : অবশ্যই আপনাকে ব্যবসার জন্য পরিশ্রম করতে হবে এবং মেধা খাটাতে হবে। চাই সেটা টাকা ছাড়া ব্যবসা হোক অথবা টাকা দিয়ে ব্যবসা হোক।

ব্যবসার ক্ষেত্রে এটাই হলো সফলতার চাবিকাঠি।

অতএব উপরে যে বিষয়গুলো আলোচনা হয়েছে যদি ভাল লাগে তাহলে কমেন্ট করে জানাবেন। শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন :-

  1. অনলাইনে পণ্য বিক্রয় করে আয় করুন খুব সহজেই – ২০২১
  2. শেয়ার বাজার কিভাবে কাজ করে ?

Leave a Reply

Your email address will not be published.

5 × 5 =