স্টেশনারি পাইকারি বাজার কোন জায়গায় রয়েছে ? এটা জানা সকলের জন্য প্রয়োজন

আপনি কি জানতে চান স্টেশনারি পাইকারি বাজার কোথায় কোথায় রয়েছে ? এ পণ্যের অনেক চাহিদা রয়েছে এবং এই ব্যবসায় অনেক লাভ রয়েছে। তাই অনেকেই এ ব্যবসা করতে চায় কিন্তু কোথায় থেকে সমস্ত পাইকারি মাল ক্রয় করবে তা জানেনা।

কেননা পাইকারি বাজারে পণ্যের মূল্য কম থাকে বা কমে পাওয়া যায়। আজ আমি স্টেশনারি পাইকারি বাজার কোথায় কোথায় রয়েছে এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

স্টেশনারি পাইকারি বাজার

স্টেশনারি পাইকারি বাজার

ঢাকা এবং চট্টগ্রামে সবচেয়ে বড় বড় এবং বিখ্যাত স্টেশনারি পাইকারি বাজার রয়েছে।

১/ বাংলাবাজার হল স্টেশনারি পাইকারি বাজার

বাংলাবাজার পাইকারি বইয়ের জন্য বিখ্যাত। বিশেষ করে ইসলামী বইয়ের জন্য আর বাংলা বাজার  পুরাতন ঢাকার সদরঘাট এলাকায় অবস্থিত। আরেকটি পরিচয় রয়েছে সেটা হল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছেই বাংলাবাজার অবস্থিত।
এখানে আপনি স্টেশনারি পণ্য পাইকারি দামে কিনতে পারবেন অর্থাৎ খুব অল্প মূল্যে।

২/ স্টেশনারি পাইকারি বাজার হল নীলক্ষেত

এখানে আপনি বিভিন্ন ধরনের স্টেশনারি পণ্য পাইকারিতে পাবেন। এটাও বাংলাবাজারের মত বইয়ের দিক দিয়েই বিখ্যাত । বিশেষ করে পুরাতন বইয়ের দিক দিয়ে। বইয়ের দিক যেমন নীলক্ষেত বিখ্যাত ঠিক তেমনিভাবে স্টেশনারি পণ্যের ক্ষেত্রেও বিখ্যাত‌।

এখানে বই এবং স্টেশনারি পণ্য ছাড়া ছাপাখানা ও বাইন্ডিং এরদিক দিয়েও বিখ্যাত। এই জায়গায় খুব কম দামে বই থেকে শুরু করে বিভিন্ন জিনিস ছাপানো হয় পাশাপাশি বাইন্ডিং ও করানো হয়।
নীলক্ষেত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্বদিকে অবস্থিত।

৩/ পাইকারি বাজার হল চকবাজার

চকবাজার পুরাতন একটি বাজার। এখানে সব ধরনের স্টেশনারি পণ্য পাওয়া যায়। আপনি এখান থেকে খুব অল্প দামে অর্থাৎ পাইকারি মূল্যে পণ্য ক্রয় করতে পারবেন। আরেকটি বিষয় চকবাজারে নকল পণ্য বেশি পাওয়া যায়। তাই অবশ্যই ভালো করে দেখে শুনে যাচাই-বাছাই করে সতর্ক হয়ে পণ্য ক্রয় করবেন।
আর এটা মূলত ঢাকার ঐতিহ্যবাহী স্থান লালবাগ এ অবস্থিত।

৪/ স্টেশনারি পাইকারি বাজার হল নিউ মার্কেট

নিউমার্কেটে নানান ধরনের পণ্য পাওয়া যায়। এখানে খুচরা হিসেবে বিক্রি করা হয় আবার পাইকারি হিসেবে বিক্রি করা হয়। স্টেশনারি পণ্য পাইকারি দরে  ক্রয় করতে পারবেন। আর নিউমার্কেট হলো ঢাকা শহরে সবচেয়ে বিখ্যাত একটি মার্কেট।
নিউ মার্কেট নীলক্ষেতের কাছেই অবস্থিত।

৫/ পাইকারি বাজার হল মোহাম্মদপুর

আপনি ঢাকা মোহাম্মদপুরে আল্লাহ করিম মসজিদ মার্কেটে নানান ধরনের স্টেশনারি পণ্য পাইকারি মূল্যে ক্রয় করতে পারবেন। এই মার্কেটে খুচরা বিক্রি করা হয় আবার পাশাপাশি পাইকারি মূল্যে বিক্রি করা হয়। অতএব আপনাকে দেখে শুনে যাচাই-বাছাই করে ক্রয় করতে হবে।

৬/ স্টেশনারি পাইকারি বাজার হল যাত্রাবাড়ী

আপনি যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তায় স্টেশনারি পাইকারির অনেক দোকান পাবেন। ওই সমস্ত দোকানে নানান ধরনের  পণ্য পাবেন। ঐ সমস্ত দোকানে পণ্য খুচরা বিক্রি করা হয় পাশাপাশি পাইকারি বিক্রি করা হয়।

অতএব আপনি ওই জায়গা থেকে খুব কম মূল্যে পাইকারি  সব ধরনের  পণ্য ক্রয় করতে পারবেন।
যাত্রাবাড়ী বড় মাদ্রাসার পাশে বর্তমানে বাংলাবাজারের মতো অনেক বড় বইয়ের মার্কেট হয়েছে। সেখানে আপনি স্টেশনারি পণ্যও পাবেন। ওখান থেকে আপনি পাইকারি মূল্যে সব ধরনের  পণ্য পাবেন।

৮/ ধানমন্ডি

ধানমন্ডিতে স্টেশনারির নানান ধরনের পণ্য পাবেন। পাইকারি এবং খুচরা  দোন ভাবেই বিক্রি করা হয়। তাই আপনি এসব দোকান থেকে পাইকারি মূল্যে খুব কম দামে  পণ্য ক্রয় করতে পারবেন। অবশ্যই যাচাই-বাছাই করে ক্রয় করবেন।

৯/ নয়াবাজার

নয়াবাজারে নানান ধরনের স্টেশনারি পণ্য বিক্রি করা হয় বাংলা বাজার এর মত। অতএব আপনি এই পাইকারি মার্কেট থেকে পাইকারি মূল্যে আপনার দোকানের জন্য  পণ্য ক্রয় করতে পারেন। অবশ্যই সতর্কতার সাথে দেখেশুনে ক্রয় করবেন।

১০/স্টেশনারি পাইকারি বাজার হল ফার্মগেট

ফার্মগেট অনেক নামকরা একটি স্থান। এখানে নানান ধরনের পণ্য বিক্রি করা হয়। সব ধরনের স্টেশনারি পণ্য পাবেন। অতএব আপনি এখান থেকে পাইকারি মূল্যে  পণ্য ক্রয় করতে পারবেন।

১১/ গুলিস্থান

ঢাকা শহরের সবচেয়ে নামকরা স্থান। এই জায়গায় সব ধরনের পণ্য পাওয়া যায়। স্টেশনারি পণ্যও পাওয়া যায়। অতএব আপনি গুলিস্তান থেকে পণ্য কম দামে ক্রয় করতে পারেন। তবে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো গুলিস্তানে সতর্কতার সাথে যাচাই-বাছাই করে পণ্য ক্রয় করবেন। কেননা এখানে অনেক ধোকাবাজ রয়েছে।

১২/ স্টেশনারি পাইকারি বাজার হল চট্টগ্রাম

আপনি আন্দরকিল্লাতে নানান ধরনের স্টেশনারি পণ্য পাবেন। সেখান থেকে আপনি পাইকারি হিসেবে  পণ্য ক্রয় করতে পারেন। ঢাকা শহরের মত চট্টগ্রামে এত নামকরা পাইকারি বাজার নেই। সেখানে অনেক ছোট ছোট দোকানে  পণ্য পাবেন ।  আপনি ইচ্ছা করলে পাইকারি দরে তাদের কাছ থেকে কিনতে পারেন।

স্টেশনারি পাইকারি বাজার অনলাইনে

অনলাইনে অনেক পাইকারি দোকান রয়েছে। যাদের কাছ থেকে অনলাইনে  পণ্য পাইকারি হিসেবে ক্রয় করতে পারবেন। অতএব আপনি সরাসরি পাইকারি মার্কেট এ না গিয়ে ঘরে বসেই  পণ্য পাইকারি হিসেবে অর্ডার দিতে পারবেন।

অনেক সময় সরাসরি পাইকারি মার্কেট এর থেকে অনলাইনের দোকানগুলোর পণ্যের মূল্য কমে পাওয়া যায়। অফলাইনে যেমন বড় বড়  পাইকারি দোকান রয়েছে ঠিক তেমনি ভাবে অনলাইনে বড় বড়  পাইকারি দোকান রয়েছে। অনলাইনে  পাইকারির কয়েকটি কোম্পানির নাম দেওয়া হল।
1/ eibbuy.com 2/ jadroo.com
এরকম আরো অনলাইনে পাইকারি বাজার রয়েছে স্টেশনারির। আপনার ইচ্ছা হয়তো আপনি সরাসরি গিয়ে পাইকারি বাজার থেকে পণ্য ক্রয় করবেন অথবা অনলাইনে অর্ডার করবেন।

স্টেশনারি পণ্যের তালিকা

স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় এর জন্য

কলম ,খাতা,  ইরেজার, পেন্সিল, চক ,ডাস্টার, স্ট্যাম্প প্যাড, ক্যালকুলেটর, জ্যামিতি বক্স ,পেন্সিল বক্স , পেন্সিল কাটার , হাইলাইটের কলম, ডকুমেন্ট হোল্ডার, পানির বোতল ইত্যাদি। এ জাতীয় আরো জিনিস রয়েছে যেগুলো শিক্ষার সাথে সম্পর্কিত।

অফিস ও ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে

হোল পাঞ্চ মেশিন, স্টাপলার মেশিন, ডকুমেন্ট ক্ল্যাম্প, মার্কার পেন, পেন হোল্ডার, পাঞ্চ ফাইল, পিনটার উপাদান, স্টিকি নোট, টেপ, পেপার কাটার, গাম, ফটোগ্রাফি মেটিরিয়ালস, লেবেল, পুশ পিন, ফাইল অর্গানাইজার ইত্যাদি।

অফিস ও ব্যবসা জাতীয়  পণ্য এবং শিক্ষা জাতীয়  অনেক জিনিসের ক্ষেত্রে একই রকম। তবে বাচ্চাদের পণ্য একটু আলাদা। বাচ্চাদের চিন্তাভাবনা করে পণ্যগুলো অন্যরকম ডিজাইনে তৈরি করা হয়।

পরিশেষে বলব : উপরে লিখিত স্টেশনারি পাইকারি বাজার সম্পর্কে যা আলোচনা করলাম। যদি এগুলো ভালো লেগে থাকে। তাহলে কমেন্ট করে জানাবেন। আরেকটি বিষয় : স্টেশনারি পণ্য ক্রয় করার ক্ষেত্রে অবশ্যই যাচাই-বাছাই করে সতর্কতার সাথে পণ্য ক্রয় করবেন।

বর্তমানে পাইকারি বাজার গুলোতে প্রচুর ধোকাবাজ রয়েছে। যদি আপনি সতর্কতার সাথে ক্রয় না করেন তাহলে অবশ্যই ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। অতএব সতর্কতার সাথে পাইকারি মূল্যে ক্রয় করার চেষ্টা করুন। তাহলে অবশ্যই আপনি আপনার ব্যবসার ক্ষেত্রে সফলতা অর্জন করতে পারবেন। ধন্যবাদ

আরো পড়ুন :- অনলাইনে ব্যবসা করার নিয়ম | অনলাইনে ব্যবসা

Leave a Reply

Your email address will not be published.

3 × 5 =