আপনি কি জানতে চান শেয়ার মার্কেট কি ? বর্তমানে বাংলাদেশের অধিকাংশ কম্পানি এর সাথে সংযুক্ত । এখান থেকে মানুষ ঘরে বসে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করছে । আপনিও যদি ইনকাম করতে চান তাহলে এ মার্কেট সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা রাখতে হবে।

কেননা  যদি পরিপূর্ণ ধারণা না থাকে তাহলে সফল হওয়া অনেকটাই কঠিন হয়ে যাবে। আজ আমি শেয়ার মার্কেট সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা দিব। পাশাপাশি খুঁটিনাটি বিষয়গুলো বলবো।

শেয়ার মার্কেট কি

শেয়ার মার্কেট বা শেয়ার বাজার কি ?

শেয়ার অর্থ হল : অংশ অর্থাৎ কোন কোম্পানির মূল মালিকানার অংশ। যেমন :  যদি বলা হয়ে থাকে অমুক কোম্পানির ১০০ টি শেয়ার রয়েছে। সেখান থেকে যদি আপনি ৫০টি শেয়ার ক্রয় করেন তাহলে বলা হবে আপনি ওই কোম্পানির অর্ধেকের মালিক।

এবং আপনি ওই কোম্পানির একজন শেয়ারহোল্ডার হবেন। ইচ্ছা করলে আপনি যেকোন সময়  আপনার ঐ শেয়ারগুলো বিক্রি করতে পারবেন।

বাজার বা মার্কেট অর্থ হলো: যেখানে কোন কোম্পানির শেয়ার বেচাকেনা হয় ।
এই হিসেবে শেয়ার বাজার হল এমন একটি স্থান যেখানে কোন ব্যক্তি কোন কোম্পানির শেয়ার ক্রয় করতে পারে অথবা বিক্রয় করতে পারে।

আশা করি আমি আপনাদেরকে শেয়ার মার্কেট বা  বাজার  কি বুঝাতে পেরেছি ?

বাংলাদেশ শেয়ার বাজার বা মার্কেট কত প্রকার ?

সাধারণত 2 টি সিস্টেমে পাবলিক শেয়ার পাওয়া যায়
১/ পাইমারি শেয়ার
২/ সেকেন্ডারি শেয়ার

প্রাইমারি শেয়ার কাকে বলে ?

সাধারণত প্রত্যেক কোম্পানি  শেয়ার মার্কেটে প্রবেশ করে  প্রাইমারি শেয়ার এর মাধ্যমে। তারপর কোম্পানি তাদের শেয়ারের মূল্য ধরে। এর সাথে প্রিমিয়াম মূল্য যোগ করা হয়।

তারপর তারা রেজিস্টার করে স্টক এক্সচেঞ্জ এর কাছে। তাদেরকে অনুমতি দিলে জনগণের কাছে তাদের শেয়ার কেনার জন্য বিভিন্ন মাধ্যমে অফার দেয়। যেমন : একটি কোম্পানির ১০০ টি শেয়ার রয়েছে। প্রতি শেয়ার মূল্য ২০ টাকা।

পাশাপাশি তারা প্রিমিয়াম এর জন্য নির্ধারণ করেছে ১০ টাকা। এই হিসেবে আপনি যদি ওই কোম্পানির কাছ থেকে শেয়ার কিনতে চান তাহলে আপনাকে ৩০ টাকা করে দিতে হবে।

সেকেন্ডারি শেয়ার কাকে বলে ?

সেকেন্ডারি শেয়ার হল ঐ শেয়ার যেটা সরাসরি কোম্পানির কাছ থেকে নেয়া হয় না বরং শেয়ার হোল্ডারের কাছ থেকে নেয়া হয়।

শেয়ার বাজার কিভাবে কাজ করে ?

কোন কোম্পানির শেয়ার বিক্রি করতে হলে প্রথমে তাকে স্টক এক্সচেঞ্জের কাছে রেজিস্টার করাতে হবে। প্রায় প্রতিটি দেশেই স্টক এক্সচেঞ্জ রয়েছে। যেমন আমাদের বাংলাদেশীয় স্টক এক্সচেঞ্জ রয়েছে।

  1.  ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ
  2. চিটাগাং স্টক এক্সচেঞ্জ
  3. পাশাপাশি আমাদের পাশের দেশ ভারতের স্টক এক্সচেঞ্জ এর নাম হলো ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ অফ ইন্ডিয়া। তারপর রেজিস্টার হয়ে গেলে ওই কোম্পানির শেয়ার বিক্রি শুরু করে দেয়।

শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ বা শেয়ার ব্যবসা করতে কত টাকা লাগে ?

আমরা দুই ভাগে ভাগ করে ছিলাম শেয়ার বাজারকে। সেই হিসাবে 5000 থেকে 6000 টাকা বিনিয়োগ করতে পারেন প্রাইমারি বাজারে ক্ষেত্রে। তবে এর থেকে বেশি টাকা বিনিয়োগ করা ভালো। প্রাইমারি বাজারে বিনিয়োগ করার ক্ষেত্রে রিক্স কম থাকে।

আর সেকেন্ডারি বাজারের ক্ষেত্রে আপনি 20 থেকে 25 টাকা দিয়ে বিনিয়োগ করতে পারবেন। তবে ধীরে ধীরে টাকার পরিমাণ বাড়ানো ভালো।

শেয়ার বাজার কি হালাল ?

শেয়ার মার্কেট হালাল হওয়ার জন্য কয়েকটি শর্ত

  1. যেসব কোম্পানির শেয়ার ক্রয় করা হচ্ছে ওইসব কোম্পানি প্রকৃতপক্ষে বিদ্যমান থাকতে হবে।
  2. হালাল এবং বৈধ হতে হবে কোম্পানির মূলধন বা সম্পদ।
  3. এসব কোম্পানির ব্যবসা হালাল হতে হবে।
  4. শেয়ার ক্রয়ের সময় অবশ্যই বেচাকেনার সকল নিয়ম নীতি বিদ্যমান থাকতে হবে।
  5. কোম্পানীর সমস্ত লাভ কোম্পানির অংশীদারদের মাঝে তার অংশ অনুপাতে বন্টন করতে হবে।
  6. কোম্পানি কোন সুদী ব্যবসার সাথে জড়িত না থাকতে হবে।

এ সমস্ত শর্ত যদি পাওয়া যায় তাহলে আশা করি শেয়ার মার্কেট এর মধ্যে বিনিয়োগ করা হালাল হবে।

পরিশেষে বলব : উপরের উল্লেখিত আলোচনা অর্থাৎ শেয়ার মার্কেট বা শেয়ার বাজার কি  ? এটা কিভাবে কাজ করে ? আরো নানান বিষয় আলোচনা করেছি। যদি আমার আলোচনা ভালো লাগে তাহলে কমেন্ট করবেন। ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন :- অনলাইনে ব্যবসা করার নিয়ম | অনলাইনে ব্যবসা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

fourteen − four =